ক’রোনায় মা’রা না গেলেও মুসলিমদের মরদেহ পুড়িয়ে ফেলছে শ্রীলঙ্কা

ক’রোনা ভা’ইরাসে মা’রা না গেলেও সংখ্যালঘু মুসলিমদের ম’রদেহ পু’ড়িয়ে ফেলতে

বা’ধ্য করছে শ্রীলঙ্কা। এই অভিযোগ এনে ন্যা’য়বিচারের দা’বি করেছেন দেশটির মুসলিমরা।

সোমবার (১১ মে) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার এক প্রতিবেদনের এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোর জুবাইর ফাতিমা রিনোসার শোকগ্রস্ত পরিবার ন্যায়বিচার এবং

ব্যাখ্যা দাবি করেছেন; ৪৪ বছর বয়সী এই নারীর শবদাহ সম্পন্ন হওয়ার দু’দিন পর করোনা

পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসায়। রিনোসার চার সন্তানের একজন মোহাম্মদ সাজিদ বলেছেন,

 

দাফনের ইসলামিক ঐতিহ্য উপেক্ষা করে সব করোনা রোগীর মরদেহ পোড়ানোর

বিষয়ে শ্রীলঙ্কার সরকারের বিতর্কিত বিধান অনুযায়ী তার মায়ের শবদাহ সম্পন্ন হয় গত ৫ মে।

তিনি বলেন, তার শোকাহত ভাইকে কর্তৃপক্ষ শবদাহ করার একটি ফরমে স্বাক্ষর নেয়।

 

এর দু’দিন পর পরীক্ষার ফলে দেখা যায় রিনোসা করোনায় মারা যাননি। মোহাম্মদ সাজিদ বলেন,

৭ মে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আমরা জানতে পারি, আমার মায়ের প্রাথমিক

করোনা পরীক্ষায় সমস্যা হয়েছিল। তিনি কোভিড-১৯ এ মারা যাননি।সাজিদ বলেন,

 

এটা জানার পর আমার মায়ের ভুল শেষকৃত্য নিয়ে শোকগ্রস্ত বাবা কান্না করেন।

আমার বাবা অবিরাম কান্না করতে থাকেন। কাঁদতে কাঁদতে তিনি বলেন, সে চলে গেছে আমি

এটা মেনে নিতে পারি। কিন্তু তার শবদাহ মেনে নিতে পারছি না।

 

শ্রীলঙ্কায় করোনায় যে ৯ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে তিনজন মুসলিম।

তাদের সবারই শবদাহ করা হয়েছে; যা মৃত ব্যক্তির ইসলামি রীতি অনুযায়ী দাফনের

বিরুদ্ধে।বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ট দক্ষিণ এশিয়ার এই দ্বীপ দেশে মৃত মুসলিমদের দাফনের বিধান রয়েছে।

 

কিন্তু গত ১১ এপ্রিল দেশটির সরকার করোনা রোগীর মরদেহ পোড়ানো বাধ্যতামূলক

করে নীতিমালা সংশোধন করে। শ্রীলঙ্কার সরকারের এই বিধান মুসলিমদের মৌলিক

ধর্মীয় অধিকারের লঙ্ঘন  বলে দেশটির মুসলিম নেতারা অ’ভিযোগ করেছেন।

 

দেশটির রাজ’নৈতিক দল শ্রীলঙ্কা মুসলিম কংগ্রেসের নেতা ও পার্লামেন্টের সাবেক

সদস্য আলী জহির মাওলানা বলেন, পরিবারটি শোক পালন করছে।

তারা শুধুমাত্র তাকেই হারায়নি বরং দাফনের মৌলিক ধর্মীয় মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ তাদের সঙ্গে খুবই বাজে আচরণ করেছে।

 

Check Also

নিঃস্ব হওয়ার পথে ভারত!

জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফ বলছে, ভারতে প্রতি সেকেন্ডে চারজন করে নতুন করো’না রোগী শনা’ক্ত হচ্ছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *