1. tahsanrakibkhan2@gmail.com : admin :
  2. dailymoon24@gmail.com : Fazlay Rabby : Fazlay Rabby
করো’না ভ্যাকসিন সবচেয়ে বড় সুখবর - Dailymoon24
শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
বাড়ি ফেরার পথে ডা’কা’তের কবলে প্রবাসী, আ’ত্নচি’ৎকার শোনার কেউ আছে? চোখে সানগ্লাস পরে হিন্দি গানে তুমুল নাচল বৃদ্ধা, ভিডিও ভাইরাল জীবনে কোটি টাকার মালিক হতে চাইলে এই ৪টি ব্যবসার কোন বিকল্প নেই মেধাবী ইঞ্জিনিয়ার থেকে সাদিয়ার সফল উদ্যোক্তা হয়ে উঠার গল্প চাইলেই তাহসান-মিথিলাকে নিয়ে আর মন্তব্য করা যাবে না ম্যাজিক নারিকেল চারা রোপনের দুই বছরের মধ্যেই ধরে যাবে নারিকেল প্ল্যাস্টিক বোতল দিয়ে খুদে বালকের বিশাল বড় বড় মাছ ধরার ভিডিও অনলাইনে তুমুল ভাইরাল বিশ্বের সবচেয়ে দামি কবুতর, দাম প্রায় ১৭ কোটি! বাদশাহ সালমান এবং ক্রাউন প্রিন্স সালমানকে নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে সৌদি রয়্যাল কোর্ট প্রবাসীরা কিভাবে পাবেন ২৫ হাজার টাকা- জেনেনিন এখান থেকে

করো’না ভ্যাকসিন সবচেয়ে বড় সুখবর

ফজলে রাব্বি
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০
  • ২৮৩ View

প্রা’ণঘাতী করো’না ভাই’রাসের টিকা পেতে অধীর আগ্রহে অ’পেক্ষা করছে বিশ্বের সাতশ’ কোটি মানুষ।

কিন্তু কবে করো’নার টিকা পাওয়া যাবে তা নিশ্চিত নয়। টিকা নিয়ে কাজ করছেন এমন বিশেষজ্ঞদের দাবি,

আগামী বছরের আগে টিকা পাওয়া কঠিন হবে। তবে পরাশক্তি দেশগুলোর মধ্যে কে আগে বাজারে

 

টিকা নিয়ে আসবে তা নিয়ে রীতিমতো ম’র্যাদার ল’ড়াই শুরু হয়েছে। বিশ্বব্যাপী করো’নাভাই’রাসের

টিকা তৈরির সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে মঙ্গলবার একটি প্রতিবেদন ছেপেছে সিনেট। তাতে বলা হয়েছে,

টিকা আবিষ্কার, অনুমোদন, উৎপাদন এবং বিশ্বব্যাপী বাজারজাতকরণে এক থেকে ১০ বছর পর্যন্ত

সময় লেগে যেতে পারে।

 

কিন্তু আশার খবরও আছে। বিশ্বজুড়ে করো’নাভাই’রাসের টিকা আবিষ্কার নিয়ে যে তোড়জোড়

চলছে তা স্ম’রণকালের ইতিহাসে অন্য কোনো রোগের টিকা আবিষ্কারের ক্ষেত্রে দেখা যায়নি।

আলজাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করো’নাভাই’রাস ছড়িয়ে পড়ার মাত্র তিন মাসের মা’থায়

 

যু’ক্তরাষ্ট্রে প্রথম রোগটির টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়। এত কম সময়ে টিকা

আবিষ্কার করে তা পরীক্ষামূলক প্রয়োগের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার সে ঘটনায় অনেকে বিস্মিত হয়েছিলেন।

যু’ক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথের অর্থায়নে ওই টিকা কর্মসূচির কার্যক্রম শুরু হয়েছিল।

 

তিন মাসের কম সময়ের মধ্যে করো’নার টিকা তৈরি করে এপ্রিলে তার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু

করে যু’ক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষকরা বলেছেন,

কম খরচে আগামী বছরের শুরুতেই তারা করো’নার টিকা বাজারে আনতে পারবেন।

 

চীনে তৈরি কমপক্ষে পাঁচটি টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়েছে মানুষের শরীরে। দেশটির

প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, চীনের তৈরি টিকা সফলতা পেলে তা সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

তবে কেউই নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না ঠিক কবে করো’নার টিকা পেতে শুরু করবে মানুষ।

 

যু’ক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ এবং দেশটির করো’না টাস্ক ফোর্সের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য

ডা. অ্যান্থনি ফুচি সিএনএনকে বলেছেন, আগামী বছরের প্রথম ভাগে টিকা পাওয়ার ক্ষেত্রে তিনি আশাবাদী।

তবে টিকা উদ্ভাবনে চলা গবেষণাগুলোর মধ্যে কোনটির কার্যক্রমের ভিত্তিতে ডা.ফুচি ওই কথা বলেছেন

 

তা তিনি স্পষ্ট করেননি। ওষুধ কোম্পানি মডার্নাকে টিকা তৈরি কার্যক্রমে সব ধরনের সহায়তা করে

যাচ্ছে যু’ক্তরাষ্ট্র। কোম্পানিটির টিকার কার্যকারিতা প্রমাণিত হলে সঙ্গে সঙ্গে তা বাজারে আনতে প্রস্তুত দেশটি।

ডা. ফুচি বলেছেন, ২০২১ সালের শুরুতেই কয়েক কোটি ডোজ টিকা হাতে পাওয়ার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী।

 

তবে অনেক চিকিৎসক আগামী বছরের প্রথম দিকে টিকা হাতে পাওয়ার লক্ষ্যমাত্রাকে ‘অ’ত্যন্ত

উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য’ বলে উল্লেখ করেছেন। এর কারণ হলো একটি টিকা মানুষের শরীরে ব্যবহার উপযোগী

কিনা তা জানতে অনেকগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন হয়। প্রথমে কোনো প্রা’ণীর ওপর টিকার

 

প্রাথমিক পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়। সেখানে সফলতা মিললে তিন ধাপে মানুষের শরীরে

পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়। এটি এতটাই দীর্ঘস্থায়ী প্রক্রিয়া যে একটি টিকা হাতে পেতে ১০

বছর পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে। দ্রুত টিকা পেতে চাইলে তার ফল ভালো হওয়ার থেকে খা’রাপ

 

হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। ২০১৭ সালে একটি ভ’য়ানক অ’ভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছিল বিশ্ব। ওই বছর দ্রুত

ডেঙ্গুর টিকা ব্যবহার করতে গিয়ে ফিলিপাইনে ১০ শি’শুর মৃ’ত্যু হয়েছিল। এরপর টিকাটির পরীক্ষামূলক

কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়। দেশটির সরকার ১৪ কর্মক’র্তাকে অ’ভিযু’ক্ত করে বলেছিল, তাড়াহুড়ো করে

 

টিকার কার্যকারিতা পরীক্ষার ফলেই এমনটা ঘটেছে। ১৯৭৬ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সতর্কবার্তা

উপেক্ষা করে দ্রুততার ভিত্তিতে সোয়াইন ফ্লুর টিকার প্রয়োগ শুরু করেছিল যু’ক্তরাষ্ট্র। চার কোটি

৫০ লাখ মানুষকে টিকা দেওয়ার পর দেখা যায় যে, ৪৫০ জনের শরীরে বিরল রোগ দেখা দিয়েছে।

 

তার মধ্যে ৩০ জন মা’রা যান। তবে সার্বিকভাবে বলা যায়, টিকার মাধ্যমে অনেক রোগ এবং অ’পরিণত

মৃ’ত্যু রোধ করা সম্ভব। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, প্রতি বছর ২০ থেকে ৩০ লাখ মানুষের জীবন বাঁ’চায় টিকা।

নিরাপদে কী’ভাবে টিকা তৈরির গতি বাড়ানো যায় তার উপায় খোঁজার চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা। এই উপায়

 

খোঁজার প্রক্রিয়া চলমান থাকার মধ্যেই বিশ্বজুড়ে অনেকগুলো গবেষণা দল করো’নাভাই’রাসের টিকা

তৈরি বা পরীক্ষার কাজ করছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, জুনের শুরুর দিকেও ১২০টির বেশি

দল করো’নার টিকা নিয়ে কাজ করছিল। ৪ জুন পর্যন্ত ১০টি দল মানুষের শরীরে টিকার পরীক্ষামূলক

প্রয়োগ শুরু করেছে। এদের মধ্যে পাঁচটি চীনে, চারটি যু’ক্তরাষ্ট্রে এবং একটি যু’ক্তরাজ্যে।

 

দৃষ্টি আকর্ষণ এই সাইটে সাধারণত আম’রা নিজস্ব কোনো খবর তৈরী করি না..

আম’রা বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবরগুলো সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি..তাই কোনো খবর

নিয়ে আ’পত্তি বা অ’ভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021  dailymoon24.com
Theme Customized BY IT Rony