কো,ভি,ড আ,ক্রা,ন্ত বর, পি,পি,ই পরেই বিয়ে

ভারতের মধ্যপ্রদেশে এক নাছোড়বান্দা যুগল পিপিই কিট পরেই বিয়ে করেছেন হাসপাতাল প্রাঙ্গণে বিয়ের দিনক্ষণ

ঠিক। মণ্ডপ সাজানো শেষ। বরের ঘোড়াও প্রস্তুত। কিন্তু বর নেই। বরের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। অগ্নি সাক্ষী

 

রেখে সাত পাঁকে ঘোরার সেসময়ে হাসপাতালে কাটাতে হচ্ছে তাকে। তবে কনেও নাছোড়,বান্দা। যেভাবেই হোক

ঠিক সময়েই বিয়ে সম্প,ন্ন হওয়া চাই তার। আর তাই পিপিই পরেই রওনা হলো হাস,পাতালের উদ্দেশে। এমনই

 

নাছোড়বান্দা এক যুগলের বিয়ের সাক্ষী হয়ে রইলো ভারতের মধ্যপ্রদেশ। মধ্যপ্রদেশের রতলামে ওই যুগল পিপিই

কিট পরেই বিয়ে করেছেন হাসপাতাল প্রাঙ্গণে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই’র বরাত দিয়ে জানা যায়, সোমবার

 

(২৬ এপ্রিল) হাসপাতাল প্রাঙ্গণেই সাত পাকে বাঁধা পড়েন তারা। এসময় পুরোহিতসহ আরও তিনজন ব্যক্তি সেখানে

উপস্থিত ছিলেন। তবে প্রত্যেকেই পিপি,ই কিট পরিহিত ছিলেন। এদিকে পিপিই কিট পরে বিয়ে করলেও তাদের

 

বি,য়ের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে অনেকেই মহামারির মধ্যে বিয়ে করার জন্য তাদের

সমা,লোচনা করেন এ বিষয়ে গিয়ে রতলামের তহসিলদার নাভিন গার্গ বলেন, “গত ১৯ এপ্রিল ক,রো,নাভা,ইরাসে

 

আ,ক্রা,ন্ত হয়েছি,লেন বর। আমরা বিয়ে বন্ধ করার জন্য উপস্থিত হলে উ,র্ধ্বতন কর্মকর্তা,দের অনুরোধ ও নির্দেশে

বিবাহ বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়। তবে বর-কনে দু’জনকেই ক,রো,নাভাই,রাস সংক্র,মণ রোধে পিপিই

 

পরানো হয়।” এমনকি মধ্য প্রদেশের ভিন্দ জেলার পুলিশ সুপার মনোজ কুমার সিং এও বলেন, যদি কোনো বিয়ের

অনুষ্ঠানে ১০জনের কম অতিথি হয় তবে সেই বর-কনেকে তার নিজের বাড়িতে দুর্দান্ত নৈশভোজ খাওয়াবে।

 

মনোজ আরও বলেন, “এই দম্পতিদের কোভিড-১৯ এর স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে চলার জন্য পদক প্রদান করা হবে

এবং তাদের জন্য সরকারি গাড়ির ব্যবস্থাও করা হবে।” উল্লেখ্য, ভারত বর্তমানে কোভিড-১৯-এর দ্বিতীয় তরঙ্গের

 

তীব্র উত্থানের সাথে লড়াই করছে। দেশজুড়ে যে কোনো ধরনের সমাবেশ সমাবেশকে সী,মাবদ্ধ করা হয়েছে। মধ্য

সরকারের নির্দেশিকা অনুসারে বিবাহ অনুষ্ঠানে সর্বাধিক ৫০জন অতিথিকে অনুমতি দেওয়া হবে।

 

 

Check Also

নিঃস্ব হওয়ার পথে ভারত!

জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফ বলছে, ভারতে প্রতি সেকেন্ডে চারজন করে নতুন করো’না রোগী শনা’ক্ত হচ্ছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *