তিন সপ্তাহ পর জনসম্মুখে এসে কি বললেন কিম

কিম অসুস্থ ছিলেন না- উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন আসলে

অসুস্থ ছিলেন না। প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে জনসম্মুখে না এসে মা’রা গেছেন বলে

গুজবের কেন্দ্রে এসেছিলেন তিনি। এমনকি তার কোনো ধরনের অস্ত্রোপচারও হয়নি।

 

রোববার দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদমাধ্যম ইয়োনহাপের বরাত দিয়ে এ

খবর দিয়েছে ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

শনিবার উত্তর কোরিয়ার সরকারি দৈনিক রোডং সিনমুনে কিমের একটি ছবি প্রকাশ করা হয়।

 

সেখানে দেখা যায়, ফিতা কেটে একটি সার কারখানার উদ্বোধন করছেন তিনি।

তবে রোডং সিনমুনে প্রকাশিত ওই ছবির সত্যতা যাচাই করা যায়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

দক্ষিণ কোরিয়ার দু’জন সরকারি কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ইয়োনহাপ যখন এই খবর দিয়েছে;

 

তখন দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মাঝে গো’লাগু’লির ঘটনা ঘটেছে।

কিম যে অস্ত্রোপচার করেননি, সে বিষয়ে বিশ্বাসযোগ্য তথ্য থাকলেও তা দিতে

অস্বীকার করেছেন দক্ষিণের ওই দুই কর্মকর্তা। কিম অস্ত্রোপচার করেছেন বলে

 

যে গুঞ্জন ছড়িয়েছে, সেই ঘটনাকে মিথ্যা বলেছেন তারা। কিমের চলাচলে পরিবর্তন

আসায় এই গুঞ্জন বলে মন্তব্য করেন দক্ষিণের কর্মকর্তারা। এর আগে রোববার সকালের

দিকে উত্তর এবং দক্ষিণ কোরিয়ার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে গো’লাগু’লি হয়।

 

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন সরকারি একটি কারখানা পরিদর্শন করে আসার

পরদিন এই গো’লাগু’লির ঘটনা ঘটে। গত ১১ এপ্রিল থেকে প্রায় তিন সপ্তাহ

জনসম্মুখে আসেননি উত্তর কোরিয়ার এই নেতা।

 

দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রোববার স্থানীয়

সময় সকাল ৭টা ৪১ মিনিটের দিকে উত্তর কোরিয়ার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর

সদস্যরা দক্ষিণ কোরিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের লক্ষ্য করে গু’লি’বর্ষণ করেছে।

 

তবে দক্ষিণ কোরিয়ার সীমান্তরক্ষী বাহিনী উত্তরের দিকে দুটি গু’লি ছুড়েছে।

তবে এতে কোনো হ’তাহ’ত হয়নি।

জনসম্মুখে না আসায় কিমের শারীরিক অবস্থা নিয়ে নানা ধরনের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে।

কয়েকদিন আগে স্থানীয় একটি গণমাধ্যম জানায়, উত্তর কোরিয়ার

এই নেতা কার্ডিওভাসকুলারের অস্ত্রোপচার করেছেন।

 

কিম ফিরে আসায় ভীষণ খুশি ট্রাম্প

 

গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই কোথাও দেখা যাচ্ছিল না উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ

নেতা কিম জং উনকে। তারপর থেকেই নানা গুঞ্জন উড়ে বেড়াচ্ছিল।

কখনও শোনা গেছে তিনি মা”রা গেছেন, আবার কেউ বলেছে করোনা

থেকে বাঁচতে নিরাপদে অবস্থান করছেন কিম।

 

গত ১১ এপ্রিলের পর থেকে কিমকে আর প্রকাশ্যে দেখা যায়নি।

এমনকি উত্তর কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং দেশটির প্রতিষ্ঠাতা কিম

ইল-সাংয়ের জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানেও লাপাত্তা ছিলেন কিম। এরপরেই বিশ্বের নজরে আসে বিষয়টি।

 

অবশেষে সব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে প্রকাশ্যে এলেন কিম। সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার

একটি সার কারখানার উদ্বোধন করতে দেখা গেছে এই শীর্ষ নেতাকে।

সে সময় তার সঙ্গে রাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের পাশাপাশি বোন কিম ইয়ো-জংও ছিলেন।

 

এদিকে, কিমের প্রকাশ্যে আসার ঘটনায় নিজের খুশি গোপন করতে পারেননি

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিম ফিরে আসায় বেশ খুশি হয়েছেন

বলে জানিয়েছেন তিনি। কিম ফিতা কেটে সার কারখানার উদ্বোধন করেছেন

এমন কিছু ছবি পোস্ট করেছেন ট্রাম্প।

 

সেখানে ট্রাম্প লিখেছেন, তিনি (কিম জং উন) ফিরে এসেছেন এবং

ভালো আছেন, এটা দেখে আমি খুব আনন্দিত।

রোববার দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা মুন চুং ইন সিএনএনকে বলেন,

 

উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতার স্বাস্থ্য নিয়ে জল্পনা থাকলেও আসলে তিনি ভালো আছেন,

বেঁচে আছেন। ওই উপদেষ্টা বলেন, গত ১৩ এপ্রিল থেকে উত্তর কোরিয়ার

পূর্ব উপকূলীয় শহর ওনসানে অবস্থান করছেন কিম।

 

উত্তর কোরিয়া তাদের সর্বোচ্চ নেতার বিষয়ে কোনো তথ্য বর্হিবিশ্বের

কাছে প্রকাশ করে না। এসব বিষয় অনেকটাই গোপনীয়। সেকারণে

কিমের হঠাৎ করে উধাও হয়ে যাওয়ার ঘটনা নিয়ে নানা ধরনের জল্পনা তৈরি হয়েছিল।

তিনি প্রকাশ্যে না আসা পর্যন্ত প্রকৃত ঘটনা জানা সম্ভব হয়নি।

Check Also

ধর্ম নিয়ে রুচিহীন প্রশ্ন বন্ধ হোকঃ বিব্রত চঞ্চল চৌধুরী

বাংলা নাটকের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র চঞ্চল চৌধুরী। এই পর্যন্ত ভিন্নধর্মী অভিনয় করে ভক্তদের হৃদয়ের মণিকোঠায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *