1. tahsanrakibkhan2@gmail.com : admin :
  2. dailymoon24@gmail.com : Fazlay Rabby : Fazlay Rabby
বাবা ডেকেও রক্ষা পাননি গৃহবধূ, পালাক্র’মে ধ’র্ষণ - Dailymoon24
সোমবার, ০৭ জুন ২০২১, ০৮:১৪ পূর্বাহ্ন

বাবা ডেকেও রক্ষা পাননি গৃহবধূ, পালাক্র’মে ধ’র্ষণ

ফজলে রাব্বি
  • Update Time : রবিবার, ৭ জুন, ২০২০
  • ৫৮০ View

নোয়াখালীর কবিরহাটে এক গৃহবধূকে (২০) স্বামীর সামনে থেকে তুলে নিয়ে সংঘবদ্ধধ’র্ষণের

অ’ভিযোগ উঠেছে। গত বুধবার (৩ জুন) রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নি’র্যাতনের শিকার ওই

গৃহবধূ শনিবার (৬ জুন) বিকেলে সাতজনের নাম উল্লেখ করে কবিরহাট থা’নায় মা’মলা করেছেন।

 

মা’মলা সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার বিকেলে পার্শ্ববর্তী সুবর্ণচর উপজে’লার চরবৈশাখী গ্রাম থেকে

জমি কেনার উদ্দেশ্যে কবিরহাট উপজে’লার ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের পূর্ব নবগ্রামে খালার বাড়িতে আসেন

ওই গৃহবধূ (২০) ও তার স্বামী (২৬)। কাজ শেষ না হওয়ায় তারা ওই বাড়িতে রাতে অবস্থান করেন।

 

রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্থানীয় সমাজ কমিটির সভাপতি আব্দুস সাত্তার ও সাধারণ সম্পাদক আবুল

কালামের নেতৃত্বে ছয়-সাতজন গৃহবধূর আত্মীয়ের বাড়িতে আসে। এ সময় তারা ঘরে ঢুকে এই

দম্পতির মধ্যে স’ম্পর্ক অ’বৈধ বলে তাদের বিয়ের কাগজপত্র দেখতে চায়।

 

কিছু বুঝে ওঠার আগেই গৃহবধূ ও তার স্বামীকে আ’ট’ক করে বাড়ির পাশের একটি জায়গায় নিয়ে

তাদের সঙ্গে থাকা টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় তারা। এ সময় আব্দুস সাত্তার ও আবুল কালাম

তাদের ছেড়ে দিতে ওই দম্পতির কাছে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন।

 

পরে ওই গৃহবধূর খালাতো ভাই সাত্তারের হাতে ৩৫ হাজার টাকা মুক্তিপণ দেন। আরও ২৫ হাজার টাকা

পরে দেবে ম’র্মে একটি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেন সাত্তার। টাকা নিয়ে আব্দুস সাত্তার ওই গৃহবধূকে নিরাপত্তা

দেয়ার কথা বলে তার মে’য়ের বাড়িতে নিয়ে যান এবং গৃহবধূর স্বামী ও খালাতো ভাইকে পি’টিয়ে জ’খম

করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন।

 

ওই গৃহবধূ অ’ভিযোগ করে বলেন, রাত ১২টার দিকে আমাকে নেয়ার জন্য খালাতো ভাই ও তার স্ত্রী’

এসেছে বলে আব্দুস সাত্তার মে’য়ের বাড়ি থেকে আমাকে বের করে নিয়ে যায়। কিছু পথ যাওয়ার পর

একটি বেড়িবাঁধের ওপর পাঁচ-ছয়জন লোকের হাতে আমাকে ছেড়ে দেয় সাত্তার। ওই লোকগুলোর

 

আচরণ দেখে আমি ঘটনা আঁচ করতে পেরে সাত্তারকে বাবা ডেকে আমাকে রক্ষা করতে বলি।

কিন্তু সাত্তার আমাকে তাদের হাতে ছেড়ে দেন। পরে রাস্তার পাশের একটি কলাবাগানে নিয়ে সাত্তারসহ

সবাই আমাকে পালাক্রমে ধ’র্ষণ করে। অচেতন অবস্থায় তারা রাত সাড়ে ৩টায় পার্শ্ববর্তী আজাদের

 

দোকানের সামনের একটি বটগাছের নিচে আমাকে রেখে চলে যায়। সেখান থেকে লোকজনের

সহযোগিতায় আমা’র স্বামী ও খালাতো ভাই আমাকে উ’দ্ধার করে।

কবিরহাট থা’না পু’লিশের পরিদর্শক (ত’দন্ত) ফজলুল কাদের জানান, গণধ’র্ষণের অ’ভিযোগ

 

এনে ঘটনার তিনদিন পর ওই গৃহবধূ শনিবার বিকেলে থা’নায় এসে সাতজনের নামে লিখিত

অ’ভিযোগ করেন। পু’লিশ অ’ভিযোগটি মা’মলা হিসেবে নথিভুক্ত করেছে।

আ’সামিরা হলেন- কবিরহাট উপজে’লার ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের নবগ্রামের আব্দুস সাত্তার, সোহেল,

 

আবুল কালাম, রিপন, মাসুম, গিয়াস উদ্দিন ও নুর আলম। নোয়াখালীর অ’তিরিক্ত পু’লিশ সুপার

(সদর সার্কেল) কাজী আব্দুর রহিম বলেন, ঘটনার পর থেকে আ’সামিরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছেন।

আ’সামিদের গ্রে’ফতাররে পু’লিশের অ’ভিযান শুরু হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জ’ড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021  dailymoon24.com
Theme Customized BY IT Rony