Breaking News

মামুনুল হক কে গ্রে’প্তার করা হবেঃ ডি’সি মতিঝিল

বায়তুল মোকাররম মসজিদে তাণ্ডবের ঘটনায় হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল

হকসহ হেফাজত নেতাদের বি’রুদ্ধে আনীত অ’ভি’যোগ তদন্তে প্রমাণিত হলে তাদেরকে গ্রে’প্তার করা

হবে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) সৈয়দ নুরুল

ইসলাম

 

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সাংবাদিকদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। ইসলাম

বাংলাদেশের ১৭ নেতার নামে মা’মলা হয়েছে। মামলার এজাহারে এক নম্বর ও হুকুমের আসামি করা

 

হয়েছে মামুনুল হককে। মামুনুল হককে গ্রে’প্তার করা হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি

বলেন, ‘আমরা তদন্ত করব। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হবে, তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

এজাহারে যাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে তাদের অনেকের রাজনৈতিক পরিচয় রয়েছে। তবে আমরা

কোনো পদ বিবেচনায় নেব না। আমরা অপরাধ বিবেচনায় নিয়ে অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। তিনি

 

আরও বলেন, মামলাটি গতকাল রাতে হয়েছে। এখনও প্রি-ম্যাচুরড রয়েছে। আমরা আসামিদের প্রকৃত

পরিচয়, তারা বর্তমানে কোথায় অবস্থান করছে, ২৬ তারিখ তারা কোথায় ছিল, বায়তুল মোকাররমে

 

সরাসরি উপস্থিত ছিল কিনা, তারা নাশকতার নির্দেশ বা উসকানি দিয়েছে কিনা, হামলার অর্থদাতা বা

মাস্টারমাইন্ড কিনা তা শনাক্ত করে তাদের গ্রেপ্তারসহ যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’ মামলাটির বিষয়ে

 

পুলিশের অবস্থান জানতে চাইলে ডিসি বলেন, ‘যিনি মামলা করেছেন, তিনি একজন ব্যবসায়ী। তিনি

টাইলসের আঘাতে আহত হয়েছেন। তার অন্য কোনো পরিচয় আছে কিনা তা আমরা খুঁজে বের করব।’

 

প্রসঙ্গত, গতকাল সোমবার (৫ এপ্রিল) রাত পৌনে ১০টার দিকে আরিফ উজ জামান নামের ওয়ারীর এক

ব্যক্তি হত্যা চেষ্টা ও বিস্ফোরক আইনসহ কয়েকটি ধারায় পল্টন থানায় মামলাটি করেন। মামলায়

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আরও ১৬ জনকে আসামি করা হয়েছে। সূত্রঃbdmorning.com

 

আরও সংবাদঃহেফাজত কর্মীদের মামলা বিনা খরচে পরিচালনার দায়িত্ব নিতে চান সুপ্রিম কোর্টের

আইনজীবী ইমরুল চৌধুরী ‘হেফাজতের কোন কর্মী আসামী শ্রেণিভুক্ত হলে বীনা খরছে তার মামলা

পরিচালনার দায়িত্ব নিতে চাই।’বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের টাইমলাইনে পোস্ট

 

করেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের এডভোকেট জনাব,ইমরুল চৌধুরী। বর্তমান সময়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী

নরেন্দ্র মোদি আশার প্রেক্ষাপট নিয়ে দেশে চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা থেকে শুরু করে নানা রকম

জটিলতা। সম্প্রতি হেফাজতের হরতাল করায় পুলিশ অনেক হেফাজত কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

সেই প্রসঙ্গে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের এডভোকেট ইমরুল চৌধুরী তার নিজের ফেসবুক আইডি থেকে

পোস্ট করেন এবং তা খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এবং আসেন ব্যাপক আলোচনার মাঝে।ইতিমধ্যে তিনি

অনেক প্রশংসাও পেয়েছেন এদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের থেকে।এর আগেও ইসলাম বিদ্বেষীদের

 

বিরুদ্ধে তার পদক্ষেপের কারণে আলোচনায় এসেছিলেন তিনি। বার্তা ওয়াল্ড সংবাদ এর সাথে ওনার

কথপোকথন হয়।উনি আমাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরও দিয়েছেন। ‘আপনি কি হেফাজতের জন্যই নাকি

যারা গ্রেফতার হয়েছে তাদের জন্যও আপনার এই উক্তিটি উল্লেখ করেছেন?’ এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি

 

আমাদের বলেন,”আপনার প্রশ্নের উত্তরে আমি বলব, ‘সকল অন্যায়ের বিপক্ষে আমি। হেফাজত কোন

রাজনৈতিক দল নয়। হেফাযত যে শান্তিপুর্ন আন্দোলন করেছে তার সাথে আমি একমত। তাই আমি

হেফাজতের সাথে আছি থাকব। হেফাজতের অনেক আইনজীবী আছে। তবু তারা যদি আমাকে

 

আইনজীবী হিসেবে নিতে চায় তাইলে আমি বিনা স্বার্থে আইনি সহায়তা করব।” প্রশাসনের সম্পর্কে উনার

মন্তব্য জানতে চাইলে উনি আমাদের জানান,’প্রশাসন এর কোন দোষ নেই। প্রশাসনের সাথে যেসব

 

সন্ত্রাসীরা থাকে তাদেরই দোষ এবং হত্যা ও করেছে পুলিশের সাথে থাকা সন্ত্রাসীরা। দেখুন পুলিশ এর সাথে

যারা থাকে এদের পুকিশ ডেকে আনেনা। রাজনোইতিক বিশৃংখলা বাড়ানোর জন্য কিছু রাজনৈতিক

ব্যাক্তি এমন করে থাকে। তাই প্রশাসন নিয়ে কোন বক্তব্য নেই।

 

 

 

Check Also

এক মুঠো খাবারের জন্য এসে প্রচণ্ড গরমে ছটফট করতে করতে মৃত্যু কোলে রিকশা চালক এক বৃদ্ধ,

বরিশালে প্রচণ্ড গরমে হঠাৎ ছটফট করতে করতে রাজা মিয়া (৬৭) নামের এক রিকশাচালকের মৃত্যু হয়েছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *