1. tahsanrakibkhan2@gmail.com : admin :
  2. dailymoon24@gmail.com : Fazlay Rabby : Fazlay Rabby
‘মৃ’ত্যু’ই সবার নিয়তি’ : ব্রাজিল প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো - Dailymoon24
শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ১০:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
বাড়ি ফেরার পথে ডা’কা’তের কবলে প্রবাসী, আ’ত্নচি’ৎকার শোনার কেউ আছে? চোখে সানগ্লাস পরে হিন্দি গানে তুমুল নাচল বৃদ্ধা, ভিডিও ভাইরাল জীবনে কোটি টাকার মালিক হতে চাইলে এই ৪টি ব্যবসার কোন বিকল্প নেই মেধাবী ইঞ্জিনিয়ার থেকে সাদিয়ার সফল উদ্যোক্তা হয়ে উঠার গল্প চাইলেই তাহসান-মিথিলাকে নিয়ে আর মন্তব্য করা যাবে না ম্যাজিক নারিকেল চারা রোপনের দুই বছরের মধ্যেই ধরে যাবে নারিকেল প্ল্যাস্টিক বোতল দিয়ে খুদে বালকের বিশাল বড় বড় মাছ ধরার ভিডিও অনলাইনে তুমুল ভাইরাল বিশ্বের সবচেয়ে দামি কবুতর, দাম প্রায় ১৭ কোটি! বাদশাহ সালমান এবং ক্রাউন প্রিন্স সালমানকে নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে সৌদি রয়্যাল কোর্ট প্রবাসীরা কিভাবে পাবেন ২৫ হাজার টাকা- জেনেনিন এখান থেকে

‘মৃ’ত্যু’ই সবার নিয়তি’ : ব্রাজিল প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো

ফজলে রাব্বি
  • Update Time : শনিবার, ৬ জুন, ২০২০
  • ২৬১ View

ক’রোনা ভা’ই’রাসের প্রকোপ যেন কমছেই না। এর তা’ণ্ড’বে বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। প্রতিদিনই বাড়ছে

আ’ক্রা’ন্ত ও মৃ’তের সংখ্যা। করোনা ভয়া’বহ রূপ নিয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে।

যেখানে আবারও সর্বোচ্চ আ’ক্রা’ন্ত ও মৃ’ত্যু’র রেকর্ড পূর্বের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেল দেশটি।

 

এরই মধ্যে দেশটিতে মৃ’তে’র সংখ্যা ৩৪ হাজার ছাড়িয়েছে। এতে করে ব্রাজিলের সামনে এখন

শুধু যুক্তরাজ্য আর যুক্তরাষ্ট্র। এতে করে চরম বিপর্যয়ের মুখে ব্রাজিলের পুরো চিকিৎসা ব্যবস্থা।

দেশটির স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুরু থেকে অবহেলা ও আর পূর্ব প্রস্তুতির অভাবেই ব্রাজিলে করোনা

 

এতোটা ভয়া’বহ রূপ নিয়েছে। যার ফল ভোগ করতে হচ্ছে গোটা লাতিন আমেরিকাকে। জেঁকে বসা

ভাই’রাসটির এমন ভয়া’বহ চিত্রে কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো।

এমন পরিস্থিতির মাঝেই ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো বলেছেন, ‘মৃ’ত্যুই সবার নিয়তি’।

 

বুধবার ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট এমনটি বলেন। অন্য দিকে, দেশব্যাপী সমালোচনার জন্য গণমাধ্যমকে

দায়ী করেছেন তিনি। ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের

তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৯ হাজার ৮৯০ জনের দেহে মিলেছে করোনা সংক্র’মণ। এতে আক্রা’ন্তের

 

সংখ্যা বেড়ে ৬ লাখ ১৫ হাজার ৮৭০ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ গেছে ১ হাজার ৪৯২ জনের।

যা একদিনে সর্বোচ্চ। এ নিয়ে দেশটিতে মৃ’তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ৩৯ জনে ঠেকেছে।

যা একদিনে সর্বোচ্চ। এ নিয়ে দেশটিতে মৃ’তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ৩৯ জনে ঠেকেছে।

 

পঙ্গপাল হতে পারে উপার্জনের নতুন রাস্তা !

অর্থ উপার্জনের নতুন রাস্তা- পাকিস্তান বৈশ্বিক ম’হা’মা’রী করোনার সাথে সাথে পঙ্গপালের

আ’ক্র’ম’ণে’র সাথেও লড়ছে। গোটা পাকিস্তান এখন দুটি সমস্যার সন্মুখিন। একদিকে করোনার তাণ্ডব।

তার ওপর আবার পঙ্গপালের হামলা। এমনিতেই পাকিস্তানের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছিল।

 

তার মধ্যে আবার পঙ্গপালের হানায় ফসল নষ্ট হয়েছে। দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ইমরান খান

এই উভয়সংকট থেকে বেরোনোর আর কোনও রাস্তা খুঁজে পাচ্ছেন না। তাই ডুবন্ত অর্থনীতি বাঁচতে

তিনি এবার আজব সমাধান বের করছেন। পাকিস্তানে মরু পঙ্গপালের হামলা নতুন কিছু নয়।

 

তবে পঙ্গপালের সমস্যা নিয়ে দেশটির মন্ত্রীদের আজব দাওয়াই এই প্রথম নয়। এর আগেও

পাকিস্তানের এক মন্ত্রী বলেছিলেন, পঙ্গপাল ভেজে খেতে পারলেই সমস্যার সমাধান।

বিপদের সময় তাঁর এই আজব সমাধান নিয়ে সমালোচনা হয়েছিল। পঙ্গপাল রোধে ব্যবস্থা না নিয়ে

 

যা নয় তাই বলেছিলেন ওই মন্ত্রী। ইমরান খান আবার সমস্যার মধ্যে সুযোগ খুঁজে পেলেন। ভারতের

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দুর্দিনে সুযোগের সন্ধান দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, এই সময় আত্মনির্ভর হওয়ার কথা।

দেশজ সামগ্রী বিক্রির মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি চাঙ্গা করার কথা বলেছিলেন তিনি। এবার পাকিস্তানের

 

প্রধানমন্ত্রী যেন মোদিকেই নকল করলেন। পঙ্গপাল সমস্যার মধ্যে তিনি উপার্জনের নতুন রাস্তা খুঁজে

বের করেছেন। ইমরান খান বলেছেন, পঙ্গপাল ধরে মুরগির ফার্ম এর মালিকদের বিক্রি করতে

পারলে লাভের মুখ দেখা যাবে। কেজি প্রতি ১৫ টাকা করে পঙ্গপাল বিক্রি করা যাবে। আর পঙ্গপাল

 

ধরে বিক্রির ক্ষেত্রে যে কেউ সরকারি সাহায্য পাবেন বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। কেবিনেট

বৈঠকের সময় পঙ্গপাল সমস্যার সমাধানে তিনি এই প্রস্তাব দেন। পঙ্গপাল মুরগির খাবার হিসেবে

ব্যবহার করা যেতে পারে। আর যে কেউ চাইলে পঙ্গপাল ধরে বিক্রি করতে পারবেন। ইমরান খান মনে করেন,

 

এভাবে নতুন একটি পেশার জন্ম হতে পারে। তার এই আইডিয়া অনেকেই আউট অফ দা বক্স বলে জানিয়েছেন।

পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে সব থেকে বেশি পঙ্গপালের উৎপাত হয়েছে। মোট ৩১ টি জেলার ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এর মধ্যে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ২১ টি জেলার ফসল। পাঞ্জাব ও সিন্ধ প্রদেশের চাষীরা ব্যাপক ক্ষতির

 

মুখে পড়েছেন। পঙ্গপাল তাড়াতে পাক সরকার টিনের ড্রাম বাজানো বা বাজি পোড়ানোর পরামর্শ দিয়েছে।

কিন্তু এখনও সরকারের পক্ষ থেকে এই সমস্যার সমাধানে কার্যকরী কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

কিন্তু এখনও সরকারের পক্ষ থেকে এই সমস্যার সমাধানে কার্যকরী কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

সূত্র : সাউথ এশিয়ান মনিটর।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021  dailymoon24.com
Theme Customized BY IT Rony