মেয়ে ধর্ষণের শিকার শুনেই বাবার মৃত্যু

অনেক সম্পদ নেই। তবে আছে সম্মান। এলাকায় সবাই সামাজিকভাবে সমীহ করেন তাকে। কিন্তু মেয়ের জীবনে ঘটেছে ‘অঘটন’।

মেয়ে নিজেই এসে জানিয়েছে এক প্রতারকের সঙ্গে সম্পর্ক করে ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ কথা শুনেই চিৎকার দিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন বাবা। অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে দ্রুত নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা করে মৃত ঘোষণা করেন তাকে।

এমন মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায়। গতকাল রবিবার রাতে তার মৃত্যু হয়। আজ সোমবার বাবাকে দাফন শেষে প্রতারক প্রেমিক বাবু মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে কিশোরী।

অভিযোগপত্রে কিশোরী উল্লেখ করে, সে ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করে। মোবাইলে উপজেলার বাবু মিয়া (২২) নামের এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ঈদুল ফিতরের ছুটিতে সে বাড়িতে এলে তাকে ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে এক আত্মীয়র বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেন বাবু।

এরপর তাকে দ্রুত বিয়ের আশ্বাস দেন অভিযুক্ত প্রেমিক। এবার ঈদে বাড়িতে এসে বাবুর সঙ্গে দেখা করতে চাইলে তার ফোন বন্ধ পায় কিশোরী। এলাকা থেকেও তিনি লাপাত্তা। পরে সে বুঝতে পারে প্রতারণার মাধ্যমে ধর্ষণের শিকার হয়েছে। বিষয়টি রবিবার রাতে পরিবারের সদস্যদের জানায় কিশোরী। শুনেই চিৎকার দিয়ে তার বাবা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, ‘গরিব হলেও কিশোরীর বাবা ছিলেন সামাজিকভাবে একজন সজ্জন মানুষ। নিজের মেয়ের এমন দুরবস্থা জানতে পেরে সহ্য করতে পারেননি। অভিযুক্তের সঠিক বিচার হওয়া প্রয়োজন। ’

আঠারবাড়ী তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ মোল্লা মোজাহিদুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘৯৯৯-এ ফোন পেয়ে ওই কিশোরীর বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় কিশোরীর বাবা মারা গেছেন। তখন লোকজন বলছিল, মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে―বিষয়টি জানতে পেরেই লজ্জা ও অপমান সহ্য করতে না পেরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি। ভুক্তভোগী কিশোরী লিখিত অভিযোগ করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*