যে ১২ দেশে এখনও ক’রোনা ঢুকতে পারেনি

প্রা’ণঘাতী করো’নাভাই’রাসে বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব। এই ভাই’রাসের

তা’ণ্ডবে দিশেহারা বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও দুটি আন্তর্জাতিক অঞ্চল।

এসব দেশ ও অঞ্চলে এখন পর্যন্ত (শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টা) আ’ক্রান্ত

 

হয়েছে ৫১ লাখ ৯৪ হাজার ২১০ জন। প্রা’ণ কেড়ে নিয়েছে ৩ লাখ ৩৪ হাজার

৬২১ জনের। গোটা বিশ্বজুড়ে এক আ’তঙ্কের নাম করো’নাভাই’রাস।

এই আ’ত’ঙ্কের মধ্যেও নির্ভাবনায় আছে ১২টি দেশ।

 

কারণ, দেশগুলোতে এখনও মহামা’রী করো’নাভাই’রাস ছড়ায়নি। খবর আল জাজিরার।

চলুন দেখে নেওয়া যাক বিশ্ব মানচিত্রের বুকে কোনও ১২ দেশে এখনও

পৌঁছায়নি বিশ্বের ত্রাস হয়ে ওঠা এই ভাই’রাস।

 

১. কিরিবাতি ২. মা’র্শাল আইল্যান্ড ৩. মাইক্রোনেসিয়া ৪. নাউরু ৫. উত্তর কোরিয়া

৬. পালাউ ৭. সামোয়া ৮. সলোমান আইল্যান্ড ৯. টেঙ্গো ১০. তুর্কমেনিস্তান ১১.

ট্যুভালু এবং ১২. ভানুয়াতু। এপ্রিলের ১৩ তারিখ পর্যন্ত এই তালিকায় ছিল

 

১৬টি দেশ। তার মধ্যে ৪টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করো’নাভাই’রাস।

সবশেষ করো’না ছড়িয়ে পড়া দেশের তালিকায় রয়েছে—কমোরস,

লেসোথো, সাও তোমে অ্যান্ড প্রিন্সিপে ও তাজিকিস্তান।

 

করোনায় মা’রা যাবে বাবা, মেয়ের শেষ ইচ্ছা ছিল বাবাকে দেখার !!

গত ২০ মে  ২০২০- ৪০ বছরের রোগী জীবনের শেষ মুহূর্তে চিকিৎসা নিতে এসেছিল

আমাদের চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতা’লে। রোগীকে প্রথম দেখায় বুঝতে পেরেছিলাম

জীবনের সময় বেশি নেই। তবু চেষ্টা করেছিলাম আমাদের সাম’র্থ নিয়ে

 

রোগীকে বাঁ’চাতে। রোগীর অ’ভিভাবকও বুঝতে পেরেছিল রোগীর পরিণতি।

করো’না টেস্ট হয়নি কিন্তু সকল লক্ষণ করো’নাভাই’রাস জনিত। অবশেষে মা’রাও

গেলেন ১৩.৩০ ঘন্টা পর। রোগীর অ’ভিভাবক হিসেবে সাথে ছিলেন তার স্ত্রী’।

 

স্ত্রী’ কে জিজ্ঞেস করতেই বললো তাদের ৭ বছরের সন্তান আছে।

সাধারণত করো’না জনিত লক্ষণে মা’রা গেলে সিভিল সার্জন অফিসে জানাতে হয়।

পরে সিভিল সার্জন নির্ধারিত প্রক্রিয়ায় দ্রুত দাফন করা হয়। কিন্তু আত্মীয় স্বজন

 

কেউ মৃ’ত ব্যক্তিকে দেখার সুযোগ হয় না। আমি মৃ’ত রোগীর অ’ভিভাবক স্ত্রী’কে

বললাম আপনাদের সন্তানকে তার বাবাকে দেখবে না? উত্তরে বললো বাসায় কেউ

নাই আর কিভাবে আসবে। পরে সিভিল সার্জন কর্তৃপক্ষ নিয়ে গেলে সন্তান বাবাকে দেখতে পারবে না।

 

আমি বললাম আপনি বাসায় গিয়ে আপনাদের সন্তানকে নিয়ে আসেন আমাদের

হাসপাতা’লের গাড়ি নিয়ে। তাই হলো, মা সন্তানকে আমাদের গাড়িতে করে নিয়ে আসলো।

সন্তান বাবাকে তার শেষ স্প’র্শ আদর দেওয়ার মুহূর্ত – ( তাদের সন্তান এর সাথে

 

আলাপে তার বাবা সন্তানের অনেক কিছু জানা হলো – ক’ষ্ট হলো অনেক,

৭ বছরের সন্তান তার বাবাকে হারালো )

লেখক: প্রধান উদ্যোক্তা, চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতাল।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

Check Also

ধর্ম নিয়ে রুচিহীন প্রশ্ন বন্ধ হোকঃ বিব্রত চঞ্চল চৌধুরী

বাংলা নাটকের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র চঞ্চল চৌধুরী। এই পর্যন্ত ভিন্নধর্মী অভিনয় করে ভক্তদের হৃদয়ের মণিকোঠায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *