৬১ ম’র’দে’হ দাফন করা কাউন্সিলর খোরশেদ করোনায় আ’ক্রা’ন্ত !

কাউন্সিলর খোরশেদ- নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার

খোরশেদ করোনায় আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন। তিনি করোনা’ভা’ইরাসে আ’ক্রা’ন্ত’স’হ সাধারণভাবে মা’রা যাওয়া মৃ’ত

ব্যক্তিদের দা’ফ’নে এগিয়ে এসে দেশ-বিদেশে আলোচিত হন। স্ত্রীর পর এবার তিনি করোনায় আ’ক্রা’ন্ত হন।

 

শনিবার (৩০ মে) কাউন্সিলর খোরশেদের করোনায় নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে পজিটিভ আসে। বিকেলে

কাউন্সিলর খোরশেদ তার ব্যক্তিগত ফেসবুকের আইডিতে করোনা পজিটিভ রিপোর্টের স্ট্যাটাস দেন।

কাউন্সিলর খোরশেদ জানান, শনিবার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পেয়েছি। এতে আমার দেহে করোনা’ভা’ইরাসের

উপস্থিতি পাওয়া গেছে। বর্তমানে নিজ বাড়িতেই আইসোলেশনে আছি। বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নেব।

সবাই আমার সুস্থতার জন্য দোয়া করবেন। তিনি জানান, আমি আ’ক্রা’ন্ত হলেও আমার সব কার্যক্রম চলবে।

আমার টিম সব সময় সক্রিয় থাকবে, আমার ফোনও চালু থাকবে। আমি যতদিন বেঁচে আছি করোনা যু’দ্ধ থেকে

 

এক বিন্দুও নড়বো না। আল্লাহ যেন আমাকে সুস্থ করেন এবং আগের মতো মানুষের সেবা করতে পারি

আল্লাহ যেন সেই তৌফিক দান করেন। আমার জন্য আমার আল্লাহই যথেষ্ট। আমি আল্লাহর ইচ্ছায় করোনা

পজিটিভ হয়েছি। তাই আগামী ৪ দিন আমি স্বশরীরে উপস্থিত না থাকলেও আমাদের দা’ফ’ন, টেলিমেডিসিন,

প্লাজমা সংগ্রহ, সবজি বিতরণ, মধ্যবিত্তের জন্য ভর্তূকি মূল্যে খাবার বিক্রি ও ত্রাণ তৎপরতা অব্যাহত

থাকবে ইনশাআল্লাহ। আর শুক্রবার (২৯ মে) পর্যন্ত ৬১টি ম’র’দে’হ দা’ফ’ন করেছেন বলে তিনি জানান।

থাকবে ইনশাআল্লাহ। আর শুক্রবার (২৯ মে) পর্যন্ত ৬১টি ম’র’দে’হ দা’ফ’ন করেছেন বলে তিনি জানান।

 

উপসর্গ নিয়ে রাতে হাসপাতালে গৃহবধূ, ভোরে মৃ’ত্যু

নাটোরে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে রুমা বেগম (২২) নামে এক গৃহবধূর মৃ’ত্যু হয়েছে।

নাটোর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (৩০ মে) ভোরে তার

মৃ’ত্যু হয়। তিনি বাগাতিপাড়া উপজেলার সাতশৈল গ্রামের উজ্জল হোসেনের স্ত্রী

নাটোর সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার (২৯ মে) রাত সাড়ে ৯টার দিকে রুমা বেগমকে

হাসপাতালে আনা হয়। তার জ্বর ও শ্বাসকষ্ট ছিল। এছাড়া তিনি ডায়াবেটিসে আ’ক্রা’ন্ত ছিলেন।

জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এ অবস্থা দেখে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

 

কিন্তু রোগীর স্বজনরা রাজশাহী নিয়ে যেতে অপরাগতা প্রকাশ করেন। এ অবস্থায় রুমা বেগমকে

নাটোর সদর হাসপাতালের করোনা আইসলেশান ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

নাটোর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. মঞ্জুর রহমান বলেন, রুমা বেগমকে অক্সিজেন,

 

নেবুলাইজারসহ অন্যান্য চিকিৎসা দেয়া অবস্থায় ভোরে তার মৃ’ত্যু হয়। তার করোনা হয়েছিল

কি-না তা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাকে দা’ফ’নে’র নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কি-না তা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাকে দা’ফ’নে’র নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Check Also

নিঃস্ব হওয়ার পথে ভারত!

জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফ বলছে, ভারতে প্রতি সেকেন্ডে চারজন করে নতুন করো’না রোগী শনা’ক্ত হচ্ছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *