গ্রে’ফতা’র হয়েছেন সৌদি বাদশাহর ছেলে প্রিন্স ফয়সাল !

গ্রে’ফতা’র হয়েছেন সৌদি বাদশাহর ছেলে প্রিন্স ফয়সাল !

প্রিন্স ফয়সাল গ্রেফতার- প্রয়াত সৌদি বাদশাহ আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল

আজিজের ছেলে প্রিন্স ফয়সালকে গ্রে’ফতা’র করা হয়েছে দাবি করেছে আন্তর্জাতিক

মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডাব্লিউ)। তারা জানিয়েছে

মার্চ মাসের শেষের দিকের পর তাকে আর প্রকাশ্যে দেখা যায়নি।

 

হিউম্যান রাইট ওয়াচ জানিয়েছে, সৌদি কর্তৃপক্ষ প্রিন্স ফয়সাল বিন আব্দুল্লাহ

আল সৌদকে এক মাস ধরে আ’টকে রেখেছে এবং তখন থেকেই তাকে নির্জন

কা’রা’বাসে রাখা হয়েছে। খবর আল জাজিরার।

 

প্রিন্স ফয়সালের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকা একটি সূত্রের বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক

ভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থাটি শনিবার জানিয়েছে, রাজধানী রিয়াদের উত্তর-পূর্বে

একটি পারিবারিক ভবনে করোনা’ভাই’রাস মহা’মারির কারণে সেল্ফ আইসোলেশনে

 

ছিলেন প্রিন্স ফয়সাল। গত ২৭ মার্চ সেখান থেকে তাকে গ্রে’ফ’তার করে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী।

সৌদি কর্তৃপক্ষ হয়ত জোরপূর্বকভাবে দেশটির সাবেক রাজা আব্দুল্লাহর পুত্র প্রিন্সকে গুম করে রেখেছে।

সৌদি যুবরাজ ফয়সাল বিন আব্দুল্লাহ আল সৌদি দেশটির মানবাধিকার সংস্থা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি

 

প্রধান ছিলেন। এইচআরডাব্লিউর মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক উপ পরিচালক মাইকেল পেইজ বলেছেন,

‘চারদিকে ব্যাপক সমালোচনা সত্ত্বেও বিতর্কিত যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের

শাসনামলে সৌদি কর্তৃপক্ষের বেআইনি আচরণ বেড়েই চলেছে।

 

এখন সৌদি আরবে শত শত ব্যক্তিকে বিনা কারণে আ’টকে রাখা ব্যক্তিদের

নামের তালিকায় যুবরাজকে ফয়সালকেও আমাদেরকে অন্তর্ভুক্ত করতে হচ্ছে।’

সৌদির ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের নেতৃত্বে দু’র্নী’তিবিরোধী অভিযানে

 

২০১৭ সালে নভেম্বর মাসে যে তিন শতাধিক প্রিন্স, রাজনীতিবিদ, বর্তমান এবং

সাবেক আমলা এবং ধনাঢ্য ব্যবসায়ীদের ধ’রপা’কড় করে রাজকীয় রিজ-কার্লটন

হোটেলে আ’টকে রাখা হয়েছিল তাদের সঙ্গে প্রিন্স ফয়সালও ছিলেন।

 

বড় অঙ্কের অর্থ প্রদানের মাধ্যমে প্রিন্স ফয়সাল ওই বছরের ২৯ ডিসেম্বর ছাড়া

পেয়েছিলেন বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছিল। হিউম্যান রাইটস

ওয়াচের এই প্রতিবেদন নিয়ে সৌদি কর্তৃপক্ষের তরফে এখনও কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

 

গত মার্চে প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশে রাজ পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্য ও

নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যাপক ধ’রপা’কড় অ’ভি’যান শুরু হয়।

যুবরাজ সালমানের এই ধ’রপাক’ড় অভি’যানে কিছুদিন আগে সৌদি রাজপরিবারের

 

প্রভাবশালী সদস্য ও বাদশাহ সালমানের সবচেয়ে ছোট ভাই প্রিন্স আহমেদ

বিন আব্দুল আজিজ এবং সাবেক ক্রাউন প্রিন্স ও দেশটির সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মোহাম্মদ বিন নায়েফকেও গ্রেফ’তার করা হয়।

 

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, বাবা সৌদি বাদশাহ সালমানের মৃ”ত্যুর পর ক্ষমতার

পথ কণ্টকমুক্ত করতে যুবরাজ ক্রাউন প্রিন্স সালমান এই অভি’যান শুরু করেছেন।

তিনি ক্রাউন প্রিন্স হওয়ার পর থেকেই দফায় দফায় এই গ্রেফ’তার ও দমনাভি’যান চলছেই।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com