আলোচিত সেই যুব ম’হিলা লীগ নেত্রী গ্রে’ফতার

আলোচিত সেই যুব ম’হিলা লীগ নেত্রী গ্রে’ফতার

গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গীর আলোচিত যুব ম’হিলা লীগ নেত্রী নাসিমা আক্তার নাসরিনকে মোটরসাইকেল

চু’রির মা’মলায় গ্রে’ফতার করেছে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে আ’দালতের মাধ্যমে

তাকে কা’রাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে হ’ত্যা, মা’দক সে’বনসহ একাধিক বি’তর্কি’ত

 

ক’র্মকাণ্ডে ব্যা’পক স’মালোচিত হয়েছিলেন যুব ম’হিলা লীগের এই নে’ত্রী।

টঙ্গী পূর্ব থানার এসআই বাবুল আহমেদ জানান, ৩ মার্চ টঙ্গী পূর্ব থানায় মোটরসাইকেল

চু’রি ও হা’মলার ঘ’টনায় যুব ম’হিলা লীগ নেত্রী নাসিমা আক্তার নাসরিন ও তার স্বা’মী জসিম

 

উদ্দিন সুমনের বি’রুদ্ধে একটি মা’মলা দা’য়ের হয়। ওই ঘটনার পর থেকে প’লাতক ছিলেন নাসিমা।

গো’পন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে তিস্তার গেইট এলাকা থেকে নাসিমা আক্তার

নাসরিনকে গ্রে’ফতার করে আ’দালতে পাঠানো হয়। মা’মলার অপর আ’সামি নাসিমার স্বা’মী সুমন

 

প’লাতক রয়েছেন। টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,

চু’রি ও হা’মলার মা’মলায় গ্রে’ফতার করে নাসিমা আক্তার নাসরিনকে আ’দালতে পাঠানো হয়েছে।

চু’রি ও হা’মলার মা’মলায় গ্রে’ফতার করে নাসিমা আক্তার নাসরিনকে আ’দালতে পাঠানো হয়েছে।

 

মিশা জায়েদের বিরুদ্ধে হিরো আলমের লিখিত অভিযোগ

এবার হেয় প্রতিপন্নের অ’ভিযোগ এনে মিশা সওদাগর ও জায়েদ খানের বি’রুদ্ধে চলচ্চিত্র প্রযোজক ও

পরিবেশক সমিতিতে লিখিত অ’ভিযোগ করেছেন আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। আজ বুধবার

তিনি এই অ’ভিযোগ করেছেন। সভাপতি

 

বরাবর অ’ভিযোগ পত্রে লেখা রয়েছে, ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি জনাব মিশা সওদাগর ও

সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান গণমাধ্যমে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করেছেন এবং বলেছেন আমি

চলচ্চিত্রের কে? এই নামে আমেক কেউ চেনেও না, জানেও না।’ উপরোল্লেখিত বিষয়ে ব্যব’স্থাগ্রহণের

 

বিনীত অনুরোধ জা’নিয়েছেন। হিরো আলমের এই অ’ভিযোগ পত্র গ্ররহণ করেছে চলচ্চিত্র প্রযোজক

ও পরিবেশক সমিতি। ঘ’টনার সূত্র- শাহরিয়ার নাজিম জয়ের একটি লাইভ অনুষ্ঠানে। সেখানে উপস্থিত

ছিলেন মিশা সওদাগর ও হিরো আলম। জয় মিশা সওদাগরকে জিজ্ঞেস করলেন, আপনাদের

 

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কি সদস্য হিরো আলম? এই প্রশ্ন কয়েকবারেও বুঝতে পারেননি মিশা। হিরো

আলমকে চিনতেই পারছিলেন না তিনি। মিশা বলেন, ‘ও হ্যাঁ তিনি তো আমাদের আজীবন সদস্য।

কিন্তু জায়েদ খান সেই ভুল ভাঙেন। জায়েদ বলেন, না না, আমা’র প্রেসিডেন্ট বুঝতে পারেননি।

একজন আছে যে মিউজিক ভিডিও করে, উনার কথা বলছেন। তিনি জয়ের প্রশ্নের উত্তর হিসেবে

 

বলতে শুরু করেন না না হিরো আলম নামে আম’রা কাউকে চিনি না। আম’রা হিরো বলতে চিনি

নায়ক রাজ রাজ্জাক, হিরো বল৯তে চিনি আলমগীর সাহেবকে… হিরো আলম নামে কাউকে চিনি না।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

তাঁর সাথে যোগাযোগ করা হলে বলেন, ‘এই মুহূর্তে একটি মিটিংয়ে আছি, ফ্রি হয়েই ফোন দিচ্ছি।’

সূত্র: কালের কণ্ঠ অনলাইন

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com