আবারও অফিস ব’ন্ধ ঘোষণা করা হল

আবারও অফিস ব’ন্ধ ঘোষণা করা হল

ক’রোনা ভা’ইরাসের কারনে দীর্ঘদিন ব’ন্ধ থাকার পর খোলা হয়েছিলো সকল অফিস। তবে

দেশের করো’না মো’কাবেলায় নেয়া হয়েছে নতুন সিদ্ধান্ত। গণমাধ্যমকে বলেন

করো’না আ’ক্রমনের শিকার ‘রেড জোন এলাকা গুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অফিসে আসতে

 

নিষে’ধ করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। গতকাল বুধবার জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন,

২৫ শতাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী অফিসে, ২৫ শতাংশ বাসা থেকে অনলাইন ও মোবাইলে যুক্ত হয়ে কাজ করছে।

বাকি ৫০ শতাংশ রিজার্ভ রাখা হয়েছে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঝুঁ’কিপূর্ণ এলাকা থেকে কেউ আসবেন না। বের হলে

 

আক্রান্ত হবেন। বাড়তি সতর্কতার সঙ্গে আমরা কাজ করছি। সচিবালয়ে অনেক ডিসিপ্লিনের মধ্য দিয়ে

কাজ চলছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডিসিপ্লিনগুলো অভ্যাসে পরিণত করতে হবে। অ’র্থনীতি ঠিক রাখতে হবে,

কাজও করতে হবে। ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম করেছে সেগুলোর যথোপযুক্ত

 

ব্যবহার করে কাজ করছি। সব কাজ চলছে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আপাতত ঢাকা, চট্টগ্রাম,

নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুরকে আমরা রেড জোন বলছি। আবার ঢাকারও পুরোটা রেড জোন হয়তো

হবে না। এখানে সংক্রমণের হার কম-বেশি রয়েছে। রেড জোনকেও ছোট ছোট

 

আবার ঢাকারও পুরোটা রেড জোন হয়তো হবে না। এখানে সংক্রমণের হার কম-বেশি রয়েছে।

রেড জোনকেও ছোট ছোট এলাকায় ভাগ করা হবে। তা নাহলে কার্যক্রম থমকে যাবে।

এলাকায় ভাগ করা হবে। তা নাহলে কার্যক্রম থমকে যাবে। তা নাহলে  কার্যক্রম থমকে যাবে।

 

ক’রোনা নিয়ে নতুন খবর দিলো আমেরিকার চিকিৎসক

প্রা’ণঘা’তী ক’রোনাভা’ইরাস দুর্বল হয়ে পড়েছে বলে কিছুদিন আগে জানিয়েছিলেন

ইতালির বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। এবার করোনা দু’র্বল হয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছেন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব পিটসবুর্গ মেডিক্যাল সেন্টারের চিকিৎসকরা।

 

বিশ্ববিদ্যালয়টির ইমারজেন্সি মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. ডোনাল্ড ইয়ালি এক

সংবাদ সম্মেলনে বলেন, মানুষ এখন খুব সহজেই এই ভা’ইরাসটির সংস্পর্শে আসছেন।

চলতি বছরের শুরুর দিকের মহামারির সময়ের আক্রান্তদের সঙ্গে তুলনা করলে

 

বর্তমানে আ’ক্রান্তদের অবস্থা গুরুতর নয়। ডা. ইয়ালি বলেন, সম্ভবত ভা’ইরাসটি

পরিবর্তিত হচ্ছে। ভা’ইরাসটির কিছু বৈশিষ্ট্য বলছে, এর শক্তি কমেছে। গত কয়েক সপ্তাহে সেখানে

চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের ভেন্টিলেটরে নেয়ার দরকার খুব কমই হয়েছে।

 

তিনি আরো বলেন, ইউপিএমসিতে সব পরীক্ষার মধ্যে চার শতাংশেরও কম এবং মাত্র

দশমিক ২ শতাংশ অ্যাসিম্পটোম্যাটিক রোগীর পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসছে। এর

মানে হচ্ছে কমিউনিটির মধ্যে এই ভা’ইরা’সটির উপস্থিতি খুবই কম।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com