ব্রেকিং …খালেদা জিয়া ক’রোনায় আ’ক্রান্ত, ছড়িয়ে পড়ল ফেসবুকে

ব্রেকিং …খালেদা জিয়া ক’রোনায় আ’ক্রান্ত, ছড়িয়ে পড়ল ফেসবুকে

বিশেষ শর্তে জা’মিন পেয়ে এখন গুলশানে নিজ বাসভবনে অবস্থান করছেন বিএনপি চেয়ারপারসন

বেগম খালেদা জিয়া। তিনি আগে থেকে নানা শা’রীরিক সমস্যায় ভূগছেন, এর মধ্যে হঠাৎ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে বেগম জিয়া ক’রোনা ভাই’রাসে আ’ক্রান্ত।

 

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) গভীর রাতে এ খবর ছড়ায় ফেসবুকে কিন্তু বিএনপির পক্ষ থেকে কিছু না

জানানোয় সত্যের সন্ধানে শুরু হয় বিডি২৪লাইভের অনুসন্ধান। অনুসন্ধানে দেখা যায়, একটি

নামসর্বস্ব অনলাইন নিউজ পোর্টাল থেকে বেগম জিয়া ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হয়েছেন বলে গুজব

 

ছড়ানো হয়েছে। নামসর্বস্ব পোর্টালটি উল্লেখ করে ঈদের পর মির্জা ফখরুল বা আবদুল আউয়াল

মিন্টুর মাধ্যমে খালেদা জিয়া ক’রোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। ফেসবুকে অনেক মানুষ না জেনেই

এই গু’জ’বটি শেয়ার করেছেন। বাস্তবে খালেদা জিয়া নানা শা’রীরিক জটিলতায় ভূগলেও ক’রোনায়

আ’ক্রান্ত হন নি, তিনি সুস্থ আছেন।

 

‘ছেলে আমাকে খেতে দেয় না, কিছু বললেই শুধু মা’রে’

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বৃ’দ্ধ বাবাকে মা’রধরের অ’ভিযোগ উঠেছে ছেলের বি’রুদ্ধে। ছেলের অ’ত্যাচার

সইতে না পেরে বাড়ি ছেড়ে বর্তমানে ওই বৃ’দ্ধ অন্যের জমিতে ছোট্ট একটি ঝুপড়ি ঘর করে বসবাস

করছেন। খাওয়া-নাওয়া চলছে প্রতিবেশীর বাড়িতে। গত এক সপ্তাহ ধরে এভাবে মানবেতর

 

জীবনযাপন করছেন হতভাগা ওই বাবা। ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজে’লার ৫নং শিমলা-রোকনপুর

ইউনিয়নের বড়শিমলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। ওই বৃ’দ্ধের নাম আবজাল গাজী। পাঁচ বছর আগে তার

ছেলেরা তার স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পত্তি লিখে নিয়েছে। বাড়ি ছাড়ার এক সপ্তাহ পর বৃহস্পতিবার

 

(৪ জুন) দুপুরে বৃ’দ্ধ আবজাল গাজী অন্যের সহযোগিতায় কালীগঞ্জ থানায় ছেলের বি’রুদ্ধে একটি

লিখিত অ’ভিযোগ করেছেন। বৃ’দ্ধের স্ত্রীও বাড়ি ছেড়ে একমাত্র মেয়ের বাড়ি বসবাস করছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বৃ’দ্ধ আবজাল গাজীর তিন ছেলে এক মেয়ে। মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন কালীগঞ্জ

 

উপজে’লার বারোবাজার এলাকায় বেশ কয়েক বছর আগে। তিন ছেলে বিদেশ করেছেন। এর মধ্যে

মেজ ছেলে রবিউল ইসলাম গাজী মা’রা গেছেন। ছোট ছেলে বাবুল গাজী এখনও প্রবাসে।

বড় ছেলে রফিক গাজী প্রায় আট বছর হলো প্রবাস থেকে ফিরে এখন বাড়িতে। এই রফিক গাজীর

 

বি’রুদ্ধে নিজ কন্যা স’ন্তানকে গ’লা টি’পে হ’ত্যার অ’ভিযোগ রয়েছে। বৃ’দ্ধ বাবা আবজাল গাজী বলেন,

ছেলে আমাকে খেতে দেয় না, কিছু বললেই শুধু মারে। প্রায়ই আমাকে ধরে ধরে মারে।

এক সপ্তাহ আগেও বড় ছেলে রফিক আমার বাম চোয়ালে জো’রে চড় মারে। এরপর বা’ধ্য হয়ে

 

প্রতিবেশীদের পরামর্শে বাড়ি ছেড়ে গ্রামের সম্পর্কে এক বোনের জমিতে একটি চালা তৈরি করে

সেখানেই থাকছি। তবে অ’ভিযুক্ত ছেলে রফিক গাজী বলেন, আমার বাবা আমার কথা শোনেন না।

তিনি তার মত করে চলতে চান। যে কারণে মতের অমিল হওয়ায় সম্প্রতি তিনি বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন।

 

জমি লিখে নেয়ার বি’ষয়টি আস্বীকার করে তিনি বলেন, সব জমি অন্যের কাছ থেকে কেনা।

তাদের প্রতিবেশী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হযরত আলী বলেন, বৃ’দ্ধ আবজাল গাজীকে প্রায়ই তার

বড় ছেলে রফিক গাজী নি’র্যাতন করে। ঠিক মতো খেতে দেয় না। এ নিয়ে সামাজিকভাবে অনেকবার

 

সালিশ হয়েছে, কিন্তু কোনো সমাধান হয়নি। এখন আবজাল গাজী প্রতিবেশী এক বোনের জমিতে

চালা তুলে বসবাস করছেন। এ ঘটনায় আমার সহযোগিতায় তিনি কালীগঞ্জ থানায় একটি অ’ভিযোগ দিয়েছেন।

কালীগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজুর রহমান মিয়া বলেন, আমি থানায় ছিলাম না।

 

বি’ষয়টি আমার জানা নেই। লিখিত অ’ভিযোগ পেলে আ’ইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বি’ষয়ে

বি’ষয়টি আমার জানা নেই। লিখিত অ’ভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।  কালীগঞ্জ

উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তা সূবর্ণা রাণী সাহা জানান, বি’ষয়টি ত’দন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com