মা খুব বাজে বাজে পিক পাঠায়

মা খুব বাজে বাজে পিক পাঠায়

খুব লজ্জা আর ক’ষ্ট নিয়ে আজ লিখছি। আমা’র বয়স ১৯। আমি স্নাতক ১ম ইয়ারে পড়ছি। আমা’র ছোট ১টা

ভাই আছে সে ৭ম শ্রেণীতে পড়ে। আমি আমা’র মা-কে অনেক ভালোবাসি। আমা’র মা আমা’র জন্য

উনার লাইফটাই বলতে গেলে বিসর্জন দিয়েছেন।  মা’র যখন ১৫ বছর তখন উনার হুট করেই বিয়ে

 

হয়ে যায় উনার থেকে ১৬ বছর এর বড় ১টা লোকের(আমা’র বাবা) সাথে।

উনি স্কুল থেকে এসে শুনে উনার বিয়ে। খুব সাদামাটা ভাবেই উনার বিয়ে হয়। মা বাবাকে দেখেই বাসর রাতে।

দেখে উনি আরও হতাশ হয়ে পড়ে। কারণ বাবা দেখতে মোটেই সুন্দর না। অনেক কালো আর খাটো ছিল।

 

 

আর সবথেকে বড় কথা হল বাবা ছিল বেকার। অ’পরদিকে মা খুব সুন্দর। খুবই সুন্দর।

মা এখনও অনেক সুন্দর। মা’র ক’ষ্ট আরও বেড়ে যায় আমি আমা’র বাবার মত হয়েছি দেখে।

হুট করে কেউ দেখলে বিলিভ করতে চায় না আমি আমা’র মায়ের মে’য়ে। কিন্তু মা আমাকে অনেক ভালোবাসে।

 

 

মায়ের বিয়েতে কেউ রাজি ছিল না। কিন্তু গ্রামের বিয়ে ,মুরব্বিরা মিলেই বিয়ে দিয়ে দেয়। পরবর্তীতে আমা’র

নানারা মাকে বাবার ফ্যামিলি থেকে নিয়ে ফেলতে চায়। মানে ডিভোর্সের কথা হয়। কিন্তু তখন আমি

পেটে চলে আসি যার জন্যে তাদের আর ডিভোর্স হয়নি। আমা’র মা আজ পর্যন্ত আমা’র বাবাকে মেনে

 

নেয়নি মন থেকে। কিন্তু বাবা মাকে অনেক ভালোবাসে। আমাদেরকে কোন দিক দিয়ে অ’সুখী রাখে নি।

আমি কখনো দেখিনি আমা’র বাবা আর মাকে একসাথে বসে আড্ডা দিতে। তারা প্রয়োজন ছাড়া

কেউ কারো সাথে কথা বলে না। মা বাবার জন্য সব করে কিন্তু তার কাছে যায় না। এমনকি তারা রাতেও

 

একসাথে থাকে না। আমা’র নানা আর দাদার ফ্যামিলিতে কেউ জানে না তাদের স’ম্পর্ক যে এত খা’রাপ।

আম’রা ভাই-বোন কখনো মা-বাবার সাথে বাইরে একসাথে ঘুরতে যাইনি। রিলেটিভ এর বাসায় গেছি কিন্তু অন্য

কোথাও ন।বাবা দুপুরে বাইরে খায়। কিন্তু রাতে বাসায়। রাতে বাসায় থাকা সত্ত্বেও এক সাথে খাওয়া হয় না।

 

 

আমি মে’য়ে হয়েও সব লজ্জা ভুলে চেয়েছি বাবা আর মাকে একত্রে রাখার। কিন্তু মা রাজি হয়নি।

খুব খা’রাপ লাগে যখন অন্য কারো মা বাবাকে দেখি।তারপরেও আমা’র মা আমা’র জন্য একজন

আদর্শ ছিল। মা’র সাথে আমা’র স’ম্পর্ক বেশি ভালো।

 

কিন্তু ইদানিং দেখি মা কাকে যেন তার খুব বাজে বাজে পিক পাঠায় ভাইবারে। কী’ রকম পিক তা আমি

বলতে পারছিনা। মা’র কাছেও আসে বাজে বাজে পিক। আমি এগুলা দেখার পর মাকে আর ভালোবাসতে পারছিনা।

উনাকে দেখলেই আমা’র ঘৃ’ণা করে। উনি কী’ভাবে পারে নিজের এত বাজে পিক পাঠাতে? আমি জানি না কে সে?

 

 

আমি বুঝতে পারছিনা উনি কেন আমা’র বাবাকে এভাবে ঠকাচ্ছে। আমি এসব নিয়ে খুব ডিস্টার্ব ফিল করছি।

লেখাপড়ায় মনযোগ দিতে পারছি না। আর মাকে দেখলেই গা জ্বালা করে।

আমি বুঝতে পারছি না কী’ভাবে সিচুয়েশন থেকে বের হব? আমি কি মাকে ডাইরেক্ট এ ব্যাপারে কিছু

জিজ্ঞেস করব?” দেশের অন্যতম একটি অনলাইনের বরাত দিয়ে খবরটি প্রকাশ করা হচ্ছে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com