কুয়েতে আটক এমপি পাপুল, এ বিষয়ে যা বললেন তার স্ত্রী সেলিনা ইসলাম

কুয়েতে আটক এমপি পাপুল, এ বিষয়ে যা বললেন তার স্ত্রী সেলিনা ইসলাম

যা বললেন স্ত্রী সেলিনা- কুয়েতে জনশক্তি রপ্তানিতে অনিয়ম এবং হাজার কোটি টাকা পাচারে

অভিযুক্ত লক্ষ্মীপুর ২ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী শহীদ ইসলাম পাপুল আট’ক হয়েছেন।

আট’কের বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন তার স্ত্রী এবং ৩৪৯ সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ও সিআইপি

 

সেলিনা ইসলাম। তিনি বলেন, ‘লক্ষ্মীপুর ২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহীদ ইসলাম পাপুল কুয়েতে

গ্রে’প্তার সম্পর্কিত যে তথ্য গণমাধ্যমে এসেছে তা ঠিক নয়। তিনি সেখানে কোনো মামলার আসা’মি নন।’

তিনি আরও বলেন, ‘কুয়েত সরকারের নিয়ম অনুযায়ী তার ব্যবসায়িক বিষয়ে আলোচনার জন্য তাকে

 

সেখানকার সরকারি দপ্তর বা সিআইডিতে ডেকে নিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে দূতাবাসের পরিষ্কার কোনো

তথ্য ছাড়া কাউকে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর অনুরোধ জানাচ্ছি।’ এর আগে গতকাল শনিবার রাতে কুয়েতের

ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি) এমপি কাজী শহীদ ইসলাম পাপুলকে আট’ক করে।

 

কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন,

‘গ্রেপ্তা’র নয়, এমপি পাপুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে গেছে কুয়েতের গোয়েন্দা পুলিশ। এখানে তার

কিছু সম্পত্তি আছে সেগুলোর ব্যাপারে কথা বলবে। এ ছাড়া কিছু তথ্যের ব্যাপারে কথা বলবে।’

 

‘তাকে গ্রেপ্তা’র করা হয়নি। এটা বলা যাবে না। আজকের মধ্যে তাকে ছেড়ে দেওয়া হতে পারে’,

যোগ করেন এস এম আবুল কালাম। ‘তাকে গ্রেপ্তা’র করা হয়নি। এটা বলা যাবে না। আজকের

মধ্যে তাকে ছেড়ে দেওয়া হতে পারে’, যোগ করেন এস এম আবুল কালাম।

গোয়েন্দা নজরদারিতে ডা. ফেরদৌস!

করোনাভাই’রাস পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের হলিউড যখন প্রাণহীন, বিশ্বখ্যাত নায়ক-নায়িকারা ঘরবন্দি,

কঠিন ওই সময়ে হলিউডের নায়কদের এড়িয়ে সামনে চলে আসেন আরেক নায়ক। তিনি চলচ্চিত্রের নায়ক

নন, নিউ ইয়র্কে করোনাযু’দ্ধের অসামান্য এক নায়ক। মানুষের প্রাণ বাঁচানোর নায়ক ডা. ফেরদৌস খন্দকার।

 

জীবনের চরম ঝুঁ’কি নিয়ে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়া ডা. ফেরদৌসের বীরোচিত ভূমিকার

কথা এখন আমেরিকার বাংলাদেশি প্রবাসীদের মুখে মুখে। প্রবাসীদের কাছে ভরসার প্রতীক মাউন্ট সিনাই

হাসপাতালের এই মেডিসিন বিশেষজ্ঞ। নিউ ইয়র্কের সেই বীর ডা. ফেরদৌস খন্দকার বাংলাদেশের

 

ক্রান্তিকালে ছুটে আসছেন দেশে। আজ রোববার বিকেলে কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিশেষ

ফ্লাইটে ৮ সদস্যের চিকিৎসক দল নিয়ে তার ঢাকায় পৌঁছানোর কথা।

কিন্তু ডা. ফেরেদৌস খন্দকারের অতীত রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত

 

চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে যোগাযোগের বিষয়টি জানার পর থেকে তার ওপর নজর

রাখতে শুরু করেছেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। বলা হচ্ছে, ডা. ফেরেদৌস খন্দকার চট্টগ্রাম মেডিকেল

কলেজে (চমেক) পড়াশুনা করার সময় বিএনপির ছাত্র সংগঠন ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

 

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশের ইলেকট্রনিক মিডিয়াতেও সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। আরো বলা হচ্ছে,

ডা. ফেরেদৌস খন্দকার গত বছর নিউইয়র্ক আওয়ামী লীগের উপদেষ্টার পদ পান। যদিও পরবর্তীতে

তাকে সেই পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তবে এ বিষয়ে ডা. ফেরদৌসের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে করোনা আ’ক্রা’ন্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিয়ে সাফল্য পেয়েছেন

বাংলাদেশি চিকিৎসক ডা. ফেরদৌস খন্দকার। কো’ভিড-১৯ রোগীদের বিশেষ করে প্রবাসী বাংলাদেশিদের

বাড়ি বাড়ি গিয়ে সেবা দিয়েছেন তিনি। যার ফলে তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ সবাই। তাই এবার দেশের মানুষকে

চিকিৎসা সেবা দিতে চিকিৎসক দল নিয়ে ঢাকায় আসছেন তিনি।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com