করোনা : বিশ্বতালিকায় ৩য় অবস্থান দখল করলো বাংলাদেশ

করোনা : বিশ্বতালিকায় ৩য় অবস্থান দখল করলো বাংলাদেশ

বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। এবার দেখা গেল,

নতুন আক্রান্তের দিক দিয়ে বিশ্ব তালিকার তিন নম্বরে উঠে এসেছে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (৯ জুন) সারা বিশ্বে তৃতীয় সর্বোচ্চ ৩১৭১ জন নতুন রোগী পাওয়া গেছে

বাংলাদেশে।

 

তালিকার শীর্ষে রয়েছে রাশিয়া, সেখানে নতুন রোগীর সংখ্যা সাড়ে আট হাজার,

অন্যদিকে সাড়ে চার হাজার রোগী নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে পাকিস্তান। করোনা

ভাইরাসের আপডেট দেয়া ওয়ার্ল্ড ওমিটার ওয়েবসাইটের তথ্য থেকে এসব জানা গেছে।

 

নতুন রোগীর তালিকায় শীর্ষ দশে থাকা অন্যান্য দেশগুলো হয়েছে মেক্সিকো, ইরান,

ভারত, ইন্দোনেশিয়া, বেলারুশ, ওমান ও কুয়েত। এ থেকে বোঝা যাচ্ছে, ইউরোপ ও আমেরিকায়

করোনার ভয়াবহতা এখন শেষের দিকে। করোনার নতুন হটস্পট এখন মধ্যপ্রাচ্য ও এশিয়া।

 

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৭১৬৭৫ জন, এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৯৭৫ জন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৭১৬৭৫ জন, এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৯৭৫ জন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৭১৬৭৫ জন, এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৯৭৫ জন।

 

করো’না ভা’ইরাসের গো’পন নথি ফাঁ’স করে দিলেন বিল গেসট

কোটি কোটি ডোজ করো’নাভ্যা’কসিন উৎপাদনের খরচ দিবেন বিল গেটস করো’নাভা’ইরাসের

ভ্যাকসিন আবিষ্কার হলে সেটি বিশ্বের দরিদ্র দেশগুলো কবে নাগাদ পাবে তা নিয়ে সংশ’য় রয়েছে।

কিন্তু এই সংশ’য় দূর করতে করোনার সম্ভাব্য কার্যকর ভ্যাকসিনের কোটি কোটি ডোজ উৎপাদনের

ব্যয় বহন করতে চান বিশ্বের শীর্ষ ধনকুবের বিল গেটস।

 

সবচেয়ে আশাব্যাঞ্জক ভ্যা’কসিনগুলোর দিকে গভীর নজর রাখছেন মার্কিন এই ধনকুবের।

কার্যকর প্রমাণিত হওয়ার আগেই উৎপাদন স’ক্ষমতা বৃদ্ধি নিশ্চিত করতে

ওষুধ কোম্পানিগুলোকে আর্থিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

 

এছাড়া যেসব নিম্ন-আয়ের দেশের সামর্থ্য নেই সেসব দেশকে সম্ভাব্য ভ্যা’কসিন কেনার জন্য

১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তাও করতে চান তিনি। ভ্যা’কসিন কেনার এই কাজে অলাভজনক

সংস্থা গাভি দ্য ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্সের মাধ্যমে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের পক্ষ

 

থেকে সহায়তা করার ঘোষণা দিয়েছেন মাইক্রোসফট করপোরেশনের এই সহ-প্রতিষ্ঠাতা।

গত বৃহস্পতিবার করো’নাভাইরাসের ভ্যাকসিন তহবিল গঠনে আন্তর্জাতিক এক সম্মেলনে অংশ

নেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল-সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনেতারা।

 

পরে সম্ভাব্য ভ্যা’কসিনের কোটি কোটি ডোজ উৎপাদন এবং সবার জন্য তা নিশ্চিত করতে বিশ্ব

নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান বিল গেটস। তিনি বলেন, এশিয়া, ইউরোপ

এবং আমেরিকায় একাধিক ভ্যাকসিন উৎপাদন কারখানা করার পরিকল্পনা রয়েছে।

 

যদি আমরা বছরে ১০০ অথবা ২০০ কোটি ডোজ উৎপাদন করতে পারি তাহলে এর বরাদ্দে

জটিল কোনও সমস্যা হবে না। এই ধনকুবের বলেন, যদি বছরে মাত্র ১০ কোটি ডোজ উৎপাদন

করা যায়; তাহলে সেখানে বড় ধরনের সম’স্যা দেখা দেবে।

 

করো’নার কারণে বিশ্বের দরিদ্র দেশগুলোতে জীবনরক্ষাকারী সব ধরনের ভ্যা’কসিনের প্রাপ্তিতে

বি’ঘ্ন ঘটেছে এবং এই ম’হামারি বৈশ্বিক নিয়মিত টিকাদান কর্মসূচি ব্যাহত করেছে।

এর ফলে লাখ লাখ শিশু ডিপথেরিয়া, হাম এবং পোলিওর মতো রো’গের ঝুঁ’কিতে পড়েছেন।

 

তবে করোনার ভ্যা’কসিন বাজারে এলে তা গাভি দ্য ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্সের

বৃহৎ পরিসরের সরবরাহ কাজে ১ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার সহায়তা করবে সিয়াটলভিত্তিক

বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন। গেটস বলেছেন, এমনকি এই কাজে ব্যয়ের পরিমাণ

 

১০ বিলিয়ন ডলারও ছাড়িয়ে যেতে পারে। গত মাসে এক সাক্ষাৎকারে গাভির প্রধান নির্বাহী

কর্মকর্তা সেঠ বার্কলি বলেন, বিশ্বে এই টিকাদান হাজার হাজার বিলিয়ন ডলার ব্যয় হতে পারে।

ডক্টরস উইদাউট বর্ডার্স বলেছে, উৎপাদন সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য গাভি বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার

তহবিলের জোগান দেয়ার প্রস্তাব করলেও ওষুধ কোম্পানিগুলো এই

 

ভ্যাকসিনের দাম মানুষের সামর্থ্যের মধ্যে রাখতে পারবে কিনা তা নিয়ে সংশ’য়’ রয়েছে।

বিল গেটস বলেছেন, করোনার কিছু ভ্যাকসিনের একটি ডোজের দাম ৪ থেকে ১৫ ডলার পর্যন্ত

হতে পারে। মার্কিন এই ধনকুবের বলেন, তিনি পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হয়েছে

 

এমন আটটি ভ্যা’কসিনকে আশাব্যাঞ্জক হিসেবে দেখছেন। আমরা এগুলো নিয়ে চিন্তা-ভাবনা

এমন আটটি ভ্যা’কসিনকে আশাব্যাঞ্জক হিসেবে দেখছেন। আমরা এগুলো নিয়ে চিন্তা-ভাবনা

করছি যদি কাজ করে তাহলে আমরা এগুলোতে নজর দেবো।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com