চতুর্মুখী বি’পদে ভারত,চীনের পর এবার সীমা’ন্তে সেনা বাড়াচ্ছে নেপাল

চতুর্মুখী বি’পদে ভারত,চীনের পর এবার সীমা’ন্তে সেনা বাড়াচ্ছে নেপাল

গত দু’মাস ধরে ভারত-চীন সী”মান্তের পরিস্থিতি উ”ত্তেজনার মধ্য দিয়েই যাচ্ছে। ১৫ জুন ভারতের

২০ জন সৈন্য নি’হত হওয়ার ঘটনায় সে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হয়ে উঠেছে।

ক্র”মশ যু’দ্ধ পরিস্থিতির দিকে ধা’বমান হচ্ছে প্রতিবেশী পা”রমাণবিক শক্তিধর দেশ দুটি।

 

এদিকে চি’রশ”ত্রু পাকিস্তানের সাথে সারাবছর সীমান্ত সংঘা”ত লেগেই থাকে। হাম’লা-পা’ল্টা হাম’লা

যেন নিত্য ব্যাপার। এর সাথে নতুন করে যোগ হয়েছে আরেক প্রতিবেশী নেপাল। ভারত সীমান্তে

সৈন্য সংখ্যা বৃদ্ধি করেছে নেপাল। তৈরি হচ্ছে ক্যাম্প, হেলিপ্যাড। এ যেন চতুর্মুখী বি”পদে ভারত।

 

সম্প্রতি ভারতের কিছু অংশ যুক্ত করে নতুন মানচিত্র প্রকাশ করেছে নেপাল। এটা আবার সংসদে

অনুমোদনও হয়েছে। এ নিয়ে দুই দেশের মধ্য উ”ত্তেজনা বেড়েছে। সংঘা”তে এক ভারতীয় নাগরিকও

মা”রা গেছে। এখন থেকে নেপালের সরকারি মানচিত্রে ভারতের তিনটি এলাকা দেখা যাবে। কালাপানি

 

ছাড়াও রয়েছে লিপুলেখ, লিম্পিয়াধুরা এলাকা। এই মানচিত্র প্রকাশ করার পরই সামরিক তত্‍পরতাও

শুরু হয়েছে ইন্দো-নেপাল সীমা”ন্তে। ছবি- ভারত-নেপাল সীমান্তে সে নেপাল সেনাবাহিনীর অস্থায়ী

ক্যাম্প।সীমান্ত বরাবর সেনা বাড়াচ্ছে নেপাল। শুধু তাই নয়, তৈরি করা হচ্ছে ক্যাম্পও।

 

এছাড়া যু”দ্ধকালীন তত্‍পরতায় হেলিপ্যাড বানানোর কাজও করছে নেপাল। সেনা তত্‍পরতা বেড়ে

যাওয়ার বেশ কিছু ছবি হাতে পেয়েছে দেশটির এক সংবাদমাধ্যম। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, জঙ্গলের মধ্যে

যু”দ্ধকালীন তত্‍পরতায় ক্যাম্প বানানোর কাজ শুরু হয়েছে। প্রতিটি ক্যাম্পে ১২ থেকে ১৩ জন করে

নেপাল আর্মি জওয়ান রয়েছেন। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এমন পরিস্থিতি আগে তারা দেখেননি।

 

কোনোদিনই নেপাল আর্মিকে অন্তত এই সমস্ত জায়গায় দেখা যায়নি। সীমান্তে ব্যাপকভাবে নির্মাণকাজ

চালাচ্ছে নেপাল। সেনা ক্যাম্প, রাস্তাসহ একগুচ্ছ নির্মাণকাজ শুরু করেছে। নেপাল-চীন সীমান্তেও চলছে

নির্মাণকাজ। কালাপানি থেকে মাত্র ৪০ কিমি দূরে একটি পোস্ট বানিয়েছে নেপাল আর্মি। সেখানেও

 

চলছে সে দেশের তত্‍পরতা। স্থানীয়রা জানাচ্ছেন, হেলিকপ্টারে করে সেনা-যন্ত্রপাতি নামানো হচ্ছে।

এদিকে, গালওয়ান সী’মান্তে এখনো উ”ত্তেজনা রয়েছে। ঘাঁটি গেড়ে বসেছে চীনের সেনাবাহিনী।

শুধু ঘাঁটি গেড়ে বসে থাকা নয়, একের পর উ”স্কানি চীনা বাহিনীর। যদিও চীনকে জবাব দেওয়ার জন্যে

 

ফুঁ”সছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। লে-লা’দাখের আকাশে এরই মধ্যে উড়তে শুরু করেছে যু”দ্ধবিমান,

হেলিকপ্টারও। একদিকে যখন গালওয়াল নিয়ে ক্রম”শ উ”ত্তেজনার পারদ চড়ছে অন্যদিকে ডোকলাম

সীমা”ন্তেও মাথা চাড়া দিচ্ছে চীনা লাল ফৌজ। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যাচ্ছে, গালওয়ান নিয়ে

 

অ”শান্তির মধ্যেই ডোকলামে আসে চীনা সেনাবাহিনী। কার্যত বলা যায় ডোকালমের রেকি করে গেছে

চীনা সেনারা। সূত্রে জানা যাচ্ছে, ভুটান সেনার আউটপোস্টে বেশ কিছুক্ষণ তারা সময় কাটান। এরপর

ডোকলাম পর্যন্ত এগিয়ে আসে। তারপর সেখানকার ভূ-কৌশলগত বেশ কয়েকটি ছবিও চীনা বাহিনী

তোলে বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com