‘মাত্র তিন মাসে পু’লিশ মানুষের হৃদয়ের মণিকোঠায় স্থান করে নিয়েছে’

‘মাত্র তিন মাসে পু’লিশ মানুষের হৃদয়ের মণিকোঠায় স্থান করে নিয়েছে’

ক’রোনায় মানবিক দায়িত্ববোধের কারণে মাত্র তিন মাসে পুলিশ মানুষের হৃদয়ের মণিকোঠায় স্থান

করে নিয়েছে। করোনার দুর্যোগ শেষ হওয়ার পরে পু’লিশ আর আগের অবস্থায় ফিরে যাবে না, বরং

আরো এগিয়ে যাওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় থাকবে। শনিবার বিকেলে রাজারবাগে পু’লিশ অডিটোরিয়ামে ঢাকা

 

মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) আয়োজিত বিশেষ অপরাধ ও আইন-শৃঙ্খলা সং’ক্রান্ত সভায় প্রধান

অতিথির বক্তৃতায় পু’লিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ এ কথা বলেন।

আইজিপি জানান, ইতোমধ্যে গতানুগতিক ধারা পাল্টে বদলিতে আনা হয়েছে নতুনত্ব। অধিকাংশ

 

পু’লিশ অফিসার এবং সদস্য সন্তানদের লেখাপড়ার সুবিধার কথা বিবেচনা করে ঢাকার বাইরে যেতে

চান না, এই সংকট নিরসনের লক্ষে ঢাকার বাইরে বিভাগীয় শহরে মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপনের

উদ্যোগের কথা জানান আইজিপি।দেশের বিভাগীয় পর্যায়ে পু’লিশের চাকরিকে আর্কষণীয় করতে

 

বিভাগীয় শহরগুলোতে পুলিশ সদস্যদের জন্য মানসম্মত চিকিৎসা সুবিধা নিশ্চিত করার প্রত্যয় ব্যক্ত

করেন তিনি। ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ক’রোনাভা’ইরা’সের এ সময়ে গত তিন মাসে পুলিশ

বদলে গেছে। পুলিশ জনগণের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। জনগণের অকুণ্ঠ সমর্থন ও বিশ্বাস অর্জন

 

করেছে। করোনায় পু’লিশ জনগণের পাশে গিয়ে যেভাবে সেবা দিয়েছে, এর বেশিরভাগই পু’লিশের

কাজ ছিল না। কিন্তু পু’লিশ এ কাজটি করেছে একান্তই নিজের দায়িত্ববোধ থেকে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতা যু’দ্ধের পর পু’লিশ এতো সম্মান, এতো মর্যাদা আর কখনো পায়নি,

 

গত তিনমাসে যা পেয়েছে। এখন জনগণ পু’লিশের পক্ষে কথা বলছে, পু’লিশের জন্য লিখছে,

যারা কথায় কথায় পু’লিশের সমালোচনা করতেন, তারাও আজ পু’লিশের পক্ষে হৃদয় উজাড় করে

বলছেন, পু’লিশকে সমর্থন করেছেন। যে সম্মান-মর্যাদা আমরা গত তিন মাসে পেয়েছি তা টাকা দিয়ে

 

কেনা যায় না, মানুষের ভালোবাসা পেতে হলে মানুষের সাথে থাকতে হয়, তাদের কাছে যেতে হয়,

মানুষকে ভালোবাসতে হয়। তিনি বলেন, জনগণের পু’লিশ হতে হলে এ বাহিনীকে সব ধরনের দু’র্নীতিমু’ক্ত

হতে হবে। পু’লিশে কোনো দু’র্নীতিবাজের ঠাঁই নেই। মাদকের সাথে কোনো পু’লিশ সদস্যের সম্পর্ক থাকবে না।

 

পু’লিশকে হতে হবে মা’দকমুক্ত। পু’লিশকে যেতে হবে জনগণের দোরগোড়ায়।

করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের সর্বোচ্চ চিকিৎসায় গৃহীত পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে

আইজিপি বলেন, রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালকে মাত্র দুই সপ্তাহে ২৫০ শয্যার জেনারেল

 

হাসপাতাল থেকে ৫০০ শয্যার কভিড হাসপাতালে পরিণত করা হয়েছে। করোনা পরীক্ষার জন্য

মাত্র ১২ দিনে পিসিআর মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। ঢাকায় একটি হাসপাতাল ভাড়া করা হয়েছে।

ঢাকার বাইরে বিভাগীয় হাসপাতাল আধুনিকায়ন করা হয়েছে। অনুষ্ঠিত কর্মশালায় কনস্টেবল

 

থেকে ইন্সপেক্টর পর্যন্ত পদমর্যাদার প্রায় পাঁচ শতাধিক পুলিশ সদস্যকে উত্তম চর্চা, ক্যারিয়ার, দু’র্নীতি,

ওয়েলফেয়ারসহ অন্য বিষয়ে লিখিত মতামত দিয়েছেন। থেকে ইন্সপেক্টর পর্যন্ত পদমর্যাদার প্রায় পাঁচ শতাধিক

পুলিশ সদস্যকে উত্তম চর্চা, ক্যারিয়ার, দু’র্নীতি, ওয়েলফেয়ারসহ অন্য বিষয়ে লিখিত মতামত দিয়েছেন।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com