পু’লিশ সদস্যকে ভালোবেসে প্রা’ণ দিল কলেজছা’ত্রী জুঁই

পু’লিশ সদস্যকে ভালোবেসে প্রা’ণ দিল কলেজছা’ত্রী জুঁই

নেত্রকোণার কেন্দুয়া সরকারি ক’লেজের জুঁই আক্তার তৃষ্ণা নামে এইচএসসি পরীক্ষার্থীর ম’রদেহ

উ’দ্ধার করে বৃহ’স্পতিবার ম’র্গে পাঠিয়েছে পু’লিশ। এর আগে, গতকাল বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার

দিকে জুঁই উপজে’লার গড়াডোবা ইউনিয়নের

 

গাড়াদিয়াকান্দা গ্রামের নিজ ঘরে গলায় মায়ের শাড়ি পেঁচিয়ে আ’ত্মহ’ত্যা করেন।

খবর পেয়ে রাতেই কেন্দুয়া থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) রাশেদুজ্জা’মান ও অ’তিরিক্ত

পু’লিশ সুপার মাহমুদুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং লা’শ উ’দ্ধার করে থা’নায় নিয়ে যান।

 

এ বিষয়ে জুঁইয়ের বাবা রতন আহম্মেদ কেন্দুয়া থা’নায় একটি অ’পমৃ’ত্যু মা’মলা দায়ের করেছেন।

আজ জুঁইয়ের মা আসমা আক্তার ও পরিবারের সদস্যরা জানান, গত সাত বছর ধরে পার্শ্ববর্তী আউদাটি

গ্রামের আবুল কালামের ছে’লে পু’লিশ কন’স্টেবল সাইফুল্লাহ তারেকের সঙ্গে জুঁইয়ের প্রে’মের

 

স’ম্পর্ক চলে আসছিল। আসমা আক্তার বলেন, ‘গত বছর ঈদুল আজহার পরদিন প্রে’মিক তারেক

ছুটিতে বাড়ি এসে জুঁইকে ফোন করে ঘুরতে নিয়ে যান। পরে মাঝপথে প্রে’মিকাকে রেখে চলে যান তারেক।

উপায়ন্তর না দেখে জুঁই তার প্রে’মিকের বাড়িতে গিয়ে উঠলে প্রে’মিকের পরিবারের লোকেরা তাকে

 

মা’নসিক নি’র্যাতন করে।’ তিনি বলেন, ‘পরে তারেকের মামা সৈয়দুজ্জামান স্বাপন জুঁইকে তার

বাড়ি নিয়ে গেলে সেখানেও শা’রীরিক ও মা’নসিক নি’র্যাতন করা হয়। পরে আমাদের খবর দেন

এবং আম’রা গিয়ে বুঝিয়ে জুঁইকে বাড়িতে নিয়ে আসি। সেই থেকে জুঁই অ’পমান বোধ করে একা

 

থাকা শুরু করে এবং কারও সঙ্গে তেমন কথাবার্তা বলতো না।’ মা আসমা আক্তার আরও বলেন,

‘গত ২-৩ মাস ধরে ওই ছে’লে (তারেক) আমা’র মে’য়ের সঙ্গে আবার ফোনে স’ম্পর্ক করে। ঘটনার

দিন বুধবার আমি সান্দিকোনা বাগানবাড়ি যাই। আমা’র স্বামী যান জনতার বাজারে। সান্দিকোনা

 

থেকে সন্ধ্যায় এসে দেখি ঘরের দরজা জানালা বন্ধ। মে’য়েকে ডেকে সাড়া শব্দ না পেয়ে জানালা

খুলে দেখি ঘরের ধর্ণার সঙ্গে আমা’র মে’য়ে ঝুলছে ।’ তিনি তারেককে দায়ী করে বলেন, ‘তারেকের

জন্য আমা’র মে’য়ে ম’রেছে। আম’রা এর দৃষ্টান্তমূলক শা’স্তি চাই।’

 

জুঁইয়ের চাচাতো বোন মিলি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে প্রে’ম ছিল তারেক-জুঁইয়ের মধ্যে। দুই বছর পূর্বে

তারেকের পু’লিশে চাকরি হওয়ার পর থেকেই সে বদলে যায়। জুঁই আ’ত্মহ’ত্যার আগে তার খাতার

ওপর লিখে রেখে যায়- “যার কারণে ছাড়লাম জগত সংসার”। (টি.জে) অর্থাৎ তারেক + জুঁই।

 

তারেকের মামা সৈয়দুজ্জামান স্বপন বলেন, মে’য়েটির সঙ্গে তারেকের প্রে’মের স’ম্পর্ক ছিল। কিন্তু বর্তমানে

নেই। এক বছর আগে মে’য়েটি ছে’লের বাড়িতে গিয়ে উঠলে আমি আমা’র বাড়িতে এনে তাদের

পরিবারের হাতে মে’য়েটিকে বু’ঝিয়ে দিই। তার ওপর কোনো নি’র্যাতন করা হয়নি।

 

এ ব্যাপারে প্রে’মিক সাইফুল্লাহ তারেকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেনন, ‘জুঁইয়ের সঙ্গে আমা’র

আগে স’ম্পর্ক থাকলেও ২-৩ বছর ধরে আমা’র কোনো স’ম্পর্ক নেই। গত ২০১৮ সালে চাকরি হওয়ার

পর থেকে তার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ নেই। তার মৃ’ত্যু স’ম্পর্কে আমি কিছুই জানি না।’

 

এ নিষয়ে কেন্দুয়ার অ’তিরিক্ত পু’লিশ সুপার (সার্কেল) মাহমুদুল হাসান এবং ওসি রাশেদুজ্জামান বলেন,

প্রে’ম সং’ক্রান্ত বিষয়টি মে’য়ের পরিবার দাবি করছে। বিষয়টি গু’রুত্ব সহকারে ত’দন্ত করে দেখা হচ্ছে।

 

ম’রদেহ নেত্রকোণা ম’র্গে পাঠানো্ হয়েছে এবং বি’স্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে জুঁইয়ের

বাবা বাদী হয়ে কেন্দুয়া থা’নায় একটি অ’পমৃ’ত্যু মা’মলা দায়ের করেছেন।’

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 NewsTheme
Design BY jobbazarbd.com