এখন সবাই আমাকে এক নামে চিনে: লেডি বাইকার ফারহানা

 

গায়ে হলুদের দিন বাইক র‌্যালি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যান

যশোরের মেয়ে ফারহানা আফরোজ। এ নিয়ে নিয়ে অনেক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

এবার ফারহানা নিজেই কথা বলেন বার্তাবাজারের সাথে। তিনি বলেন ‘নরমালি যখন দেখি যে মানুষ

 

হলুদে এন্ট্রি দিচ্ছে নাঁচতে নাঁচতে, অনেক ছেলে আছে বাইক চালিয়ে এন্ট্রি দিচ্ছে।

এটা দেখে আমার ইচ্ছে হলো যে, আচ্ছা ঠীক আছে যখন এটা করা যায় তাহলে বাইক চালিয়ে

পার্লার থেকে বেরিয়ে হলুদের এন্ট্রি দেই। সাথে একটা ভিডিও ম্যান রাখি। যেহেতু মেয়ে বাইক চালাই

 

সুন্দর করে একটা শুট হোক। সে হিসেব থেকেই মেইনলি এটা আমার করা। যদি বলি যে চারদিকে

সাড়া জাগিয়ে তুলেছে। আসলে এতো টা চিন্তা করে এটা করি নাই’। ফারহানা আরও বলেন, ‘এটা নিজের ইচ্ছা

থেকে নিজের শখ পূরণের জন্য করেছি। যেহেতু এক হিসেবে আমার বিয়ে হয়েছে ২০১৭’তে। বাবা মারা গিয়েছে,

 

পড়াশুনা চলছিলো। যার কারণে আমার পোগ্রামটা হয় নাই। এখন যখন শশুর বাড়িতে উঠাই নিচ্ছিলো, তখন

ভাবলাম যে পোগ্রামটা-অনুষ্ঠানটা ঠীকমতো করি। এখান থেকেই পোগ্রামটা করা। আর এর থেকে আমি নিজেও

এতটুকু ফিল করি বা সবাইবকে বলতে চাই, যদি ফ্যামিলির সাপোর্ট থাকে একটা মেয়ের যুদ্ধ জয় করা সম্ভব।

 

ফ্যামিলির সাপোর্ট সবছেয়ে বড় হাতিয়ার।’ এখন আপনার অনুভূতি কেমন এমন প্রশ্নে ফারহানা বার্তাবাজারকে

বলেন- অনুভূতি বলতে ভালো লাগতেছে। ‘যেহেতু এখন সবাই চিনতেছে,জানতেছে। যদিও এটা আমার কোর

 

টার্গেট ছিলো না। বা আমি কোন প্ল্যান করি নাই। আসলেই খুবই ভালো লাগছে ব্যাপারটা। যে সবাই এখন এক

নামে আমাকে চিনে।’ এর আগে ১৩ আগস্ট গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান ঘিরে যশোর শহর জুড়ে বাইক চালিয়ে

আলোচনায় আসেন ফারহানা।

 

 

Check Also

বিশ্বের প’রাশ’ক্তি হতে যাচ্ছে তুরস্ক

  ব্যাপক অনুসন্ধানের পরে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান গত শুক্রবার আনন্দের সাথে ঘোষণা করেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *