জে’নে নিন মুখের ঘা দূর করার ঘরোয়া ৬ উপায়

মুখের ভেতরে ঠোটের নীচে, দাঁতের মাড়িতে এবং জিভে ছোট ছোট ঘা দেখা যায় অনেক সময়। এগুলো বেশ কষ্টদায়ক এবং অস্ব’স্তি কর। মাঝে মধ্যে অনেকেই এই স’মস্যায় পড়ে থাকেন। মুখের এই ঘা এক ধ’রনের আলসার। অনেক ক্ষেত্রে এগুলো কয়েক দিন থেকে চলে যায়, কোন কোন এক দুই মাসও স্থা’য়ী হয়। আবার এই

 

ছোট ঘা বড় ঘা-এর রূপও নেয়। গালের ভেতরের অংশ কে’টে ছিঁড়ে গেলে ঘা হতে পারে। শক্ত ব্রাশের খোঁচা লে’গেও এই স’মস্যা অনেকেরই হয়। খুব গরম খাবার বা পানীয় খেতে গিয়ে ছাল উঠে গেলে বা গালের ভেতরে কামড় লাগলেও এই রকম ঘা হতে পারে। মুখের ঘায়ের ক্ষেত্রে এগুলো খুবই সাধারণ কারণ।

 

এছাড়া জ্বর, র’ক্তস্বল্পতা, ফুড অ্যালার্জি, পুড়ে যাওয়া, স্ট্রেস, অতিরি’ক্ত অ্যাসিডিটি, ভিটামিনের অভাব ইত্যাদি মুখের ঘা হওয়ার অন্যতম কারণ। ঘায়ের তীব্র ব্য’থার কারণে অনেকে ঠিকমত খেতে পারেন না। ওষুধ ছাড়াও ঘরোয়া কিছু উপায়ে এই ঘা ভাল করা সম্ভব।

 

মরণব্যধির প্রাথমিক উপস’র্গ হতে পারে মুখের এই ঘা। চিকিৎ’সা বিজ্ঞান অনুযায়ী প্রায় ২০০ রো’গের প্রাথমিক লক্ষণ প্র’কাশ পায় মুখগহ্বরের ঘা থেকে। এমন কিছু ঘরোয়া উপায় রয়েছে যা মুখের ঘা-এর ক্ষেত্রে বেশ কা’র্যকরী।

 

এবার জে’নে নিন এই উপায়গুলো:

যষ্টিমধু: মুখের ঘা সারাতে যষ্টিমধু বেশ কা’র্যকর। এক টেবিল চামচ যষ্টিমধু দুই কাপ পানিতে দুই থেকে তিন ঘন্টা ভিজিয়ে রাখু’ন। এটি দিয়ে দিনে কয়েকবার কুলকুচি করুন। যষ্টিমধুর অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরী এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল উপাদান মুখের ঘা ভাল করে থাকে।

 

 

টি-ব্যাগ: এই রো’গের ক্ষেত্রে খুব সহজ ঘরোয়া উপায় হল টি-ব্যাগ। এটি দ্রুত ব্য’থা এবং ইনফ্লামেশন দূ’র করে। একটি টি-ব্যাগ ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে সেটি ঘায়ের স্থানে লা’গান। স’ঙ্গে স’ঙ্গে আপনার ব্য’থা কমিয়ে দিবে।

 

 

নারিকেল তেল: সহজলভ্য নারিকেল তেল দিয়ে মুখের ঘা দূ’র করা সম্ভব। একটু তুলার স’ঙ্গে নারকেল তেল লা’গিয়ে সেটি মুখের ঘায়ের স্থানে লা’গান। নারিকেল তেলের অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল উপাদান ঘা সারিয়ে তুলতে সাহায্য করবে।

 

তুলসি পাতা: কয়েকটি তুলসি পাতাসহ দিনে তিন থেকে চারবার পানি পান করুন। এটি দ্রুত মুখের ঘা প্র’তিরো’ধ করবে এবং মুখে ঘা হওয়ার প্র’বণতা কমিয়ে দিবে। বেকিং সোডা: এক চা চামচ বেকিং সোডা অল্প পানিতে মিশিয়ে

 

পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পাতলা পেস্টটি মুখের ঘায়ের স্থানে লা’গিয়ে নিন। এটি দিনে কয়েকবার করুন। এছাড়া বেকিং সোডা সরাসরি মুখের ঘায়ের স্থানে লা’গাতেও পারেন। মধু: তুলার স’ঙ্গে মধু লা’গিয়ে নিন। এবার এটি মুখের ঘায়ের স্থানে লা’গান। ব্য’থার কষ্ট কমে আসবে। এছাড়া মুখের ঘায়ের স্থানে গ্লিসারিন, ভিটামিন-ই অয়েলও লা’গাতে পারেন।

 

 

Check Also

ভারতের মাদ্রাসার পাঠ্যক্রমে থাকবে বেদ, গীতা, রামায়ণ

প্রাচীন ভারতের জ্ঞান-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি চর্চা হিসেবে ভারতের মাদ্রাসার পাঠ্যক্রমে বেদ, গীতা, রামায়ণ পড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *