স্কুল-কলেজ খোলা হবে শিক্ষকদের টিকা দিয়ে : শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছেন শিক্ষকদের টিকা দেয়ার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে আর কোনো সমস্যা থাকবে না। তিনি বলেন, আগামী সপ্তাহ থেকে অনাবাসিক ও আবাসিক শিক্ষকদের করোনার টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হবে।

 

সে জন্য নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শিক্ষকদের টিকা দিয়ে স্কুল-কলেজ খোলা হবে। ধাপে ধাপে শিক্ষার্থীদেরও টিকার আওতায় আনা হবে। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে প্রথম ভাইস-চ্যান্সেলর’স অ্যাওয়ার্ড প্রদান

 

ও রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। শিক্ষাব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আনা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীরা ডিগ্রি অর্জন করে চাকরির পেছনে ছুটতে শুরু করে।

 

মনে হয় যে তারা চাকরি পাওয়ার জন্য পড়ালেখা করে, সেটি তাদের একমাত্র লক্ষ্য। এ ধারণা থেকে আমাদের শিক্ষার্থীদের বের করে আনতে চাই। এ জন্য অনেক পরিবর্তন আনা হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা ডিগ্রি নিয়ে যেন বের হওয়ার সঙ্গে তাদের দক্ষ, জ্ঞান ও মানবিকতা নিয়ে বের হতে পারে।

অনুষ্ঠানে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, দেশের ২৮ লাখ শিক্ষার্থীর উচ্চশিক্ষা নেয়ার প্রয়োজন রয়েছে কিনা তা ভাবতে হবে। আমাদের অর্থনীতিতে অদক্ষ ডিগ্রিধারীদের চাহিদা আছে কিনা তা নিয়ে দেখতে হবে।

 

তিনি বলেন, সবার জন্য উচ্চশিক্ষার দ্বার খোলা রাখতে হবে। কায়িকশ্রম বিশিষ্ট শিক্ষা ও দক্ষ প্রদান করা আমাদের বেশি জরুরি হয়ে পড়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। করোনার টিকা নিলেন আ.লীগের একঝাঁক কেন্দ্রীয় নেতা

 

আওয়ামী লীগের একঝাঁক কেন্দ্রীয় নেতা করোনা ভাই’রা’সের টিকা গ্রহণ করেছেন। বৃহস্পতি বার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস অ্যান্ড হসপিটালের টিকাদান কেন্দ্রে তারা টিকা নেন।

 

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের তালিকা অনুযায়ী এদিন ১৪জন কেন্দ্রীয় নেতা টিকা গ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করেন। তারমাঝে ডজনখানেক নেতা আগারগাঁও থেকে টিকা নিয়েছেন। টিকা নেয়া নেতারা হলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল ইসলাম চৌধুরী নাদেল,

 

স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার চাঁপা, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান,

 

কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য আনোয়ার হোসেন, সাহাবুদ্দিন ফরাজী ও সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম। একই দিনে উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মুকুল বোস, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন,

 

কেন্দ্রীয় সদস্য উপাধ্যক্ষ রেমন্ড আরেং, আজিজুস সামাদ আজাদ ডন টিকা নেবেন বলে জানা গেছে। এর আগে কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা তাদের নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে নিজেরা টিকা গ্রহণের মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরাও নানান সময়ে টিকা নিয়েছেন।

 

টিকা গ্রহণ করে দেশবাসীকেও টিকা গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। তারা বলেছেন, করোনা’ভাই’রাসের টিকা গ্রহণে কোনো অপপ্রচার-মিথ্যাচারে কান না দিয়ে টিকা গ্রহণ করুন। যে যতই অপপ্রচার করুক, আমাদের টিকাদান কার্যক্রম চলবে।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা রেখেছেন। পর্যায়ক্রমে দেশের সব মানুষকে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা টিকা প্রদানের ব্যবস্থা করবেন। টিকা গ্রহণ শেষে সাংবাদিকদের সামনে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা।

 

 

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক দেশের বিরুদ্ধে লড়াই করে এই টিকা এনেছেন প্রান্তিক জনগণের স্বাস্থ্যের উন্নতির লক্ষ্যে। তিনি মানুষকে সুরক্ষা দেয়ার জন্য কৃষি, শিক্ষা খাতের মতোই এটিকে দেখছেন।

 

 

মহা’মা’রির ভ’য়াল এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য বাংলাদেশের প্রত্যেকটি মানুষকে সুস্থ রাখার জন্য তিনি টিকার ব্যবস্থা করেছেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘অপপ্রচার আগেও ছিল সব কাজে। অপপ্রচার এখনো আছে। তারপরও মানুষ যেটা সঠিক সিদ্ধান্ত, সেটাই মেনে নিচ্ছে আমরা মনে করি।’

 

 

Check Also

ভারতের মাদ্রাসার পাঠ্যক্রমে থাকবে বেদ, গীতা, রামায়ণ

প্রাচীন ভারতের জ্ঞান-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি চর্চা হিসেবে ভারতের মাদ্রাসার পাঠ্যক্রমে বেদ, গীতা, রামায়ণ পড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *