জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের নাগরিক ছিলেন: নৌপ্রতিমন্ত্রী

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্তকে সঠিক। তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের নাগরিক ছিলেন না। তিনি পাকিস্তানের নাগরিক ছিলেন বলে জানান নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ

 

মাহমুদ চৌধুরী। তার মা-বাবাও ছিলেন পাকিস্তানি। তিনি যদি বাংলাদেশি নাগরিক হতেন তাহলে তার মা-বাবার কবর পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশে নিয়ে আসতেন। অতীতে অনেক মুক্তিযোদ্ধার কবর পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশে আনা হয়েছে।

 

কিন্তু জিয়াউর রহমানের মা-বাবার কবর তো আর বাংলাদেশে নিয়ে আশা হয়নি। শনিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার শেওলা স্থলবন্দরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি

 

এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিকল্পিত উন্নয়নের কারণে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে ২০৩০ সালের মধ্যে পুরো দেশের চেহারা পাল্টে যাবে। অতীতে সরকারের অপরিকল্পিত উন্নয়ন ভাবনা এবং

 

প্রকল্পে লু’টপা’টের কারণে আমরা ক্রমশ পিছিয়ে যাচ্ছিলাম। এখন প্রতিটি প্রকল্প স্বচ্ছভাবে পরিচালিত হওয়ায় উন্নয়ন কার্যক্রম ত্বরান্বিত হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, দেশের মানুষের চাওয়া আমরা পূরণ করতে পেরেছি। মানুষ কি চায়, তা জানার জন্য আমরা ঘরে-ঘরে যাচ্ছি। গ্রামীণ উন্নয়নে প্রতিনিয়ত নতুন প্রকল্প গ্রহণ করছি।

 

 

রাজনীতি, উন্নয়ন, গণতন্ত্র একসঙ্গে চালাতে হবে। যা চালকের আসনে থেকে পরিচালিত করছেন শেখ হাসিনা। সব পর্যায় থেকে দু’র্নী’তি দূর করতে তিনি কঠোর অবস্থানে রয়েছেন। তার যোগ্য নেতৃত্বে করোনাকালীন এই কঠিন সময়েও বাংলাদেশের অর্থনীতি মজবুত অবস্থানে রয়েছে।

 

বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কে এম তারিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত কাস্টমস কমিশনার রাশেদুল হাসান, সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজি এম এমদাদুল ইসলাম, ইউএনও মৌসুমী মাহবুব,

 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (জকিগঞ্জ সার্কেল) সুদীপ্ত রায় ও আওয়ামী লীগ সভাপতি আতাউর রহমান খান। অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব সরোয়ার আলম, সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল হক,

 

বিভাগীয় কাস্টমসের অতিরিক্ত কমিশনার রাশিদুল হাসান, বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আতাউর রহমান খানসহ আরো অনেকে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এম. তারিকুল ইসলাম।

 

 

Check Also

ভারতের মাদ্রাসার পাঠ্যক্রমে থাকবে বেদ, গীতা, রামায়ণ

প্রাচীন ভারতের জ্ঞান-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি চর্চা হিসেবে ভারতের মাদ্রাসার পাঠ্যক্রমে বেদ, গীতা, রামায়ণ পড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *