বাইকে কুকুর নিয়ে ৬৪ জে’লা ঘুরলেন সুজাতা

মানিকগঞ্জে’র সিংগাইর উপজে’লার জামসা ইউনিয়নের নয়পাড়া গ্রামের সুজাতা। মানিকগঞ্জে’র সবাই তাকে লেডি বাইকার হিসেবে চেনেন। এবার তিনি গত ২০ জানুয়ারি থেকে ৪ ফেব্রুয়ারি পযর্ন্ত মাত্র ১৫ দিনে বাইক নিয়ে ঘুরে আ’সলেন বাংলাদেশের ৬৪ জে’লা।

 

প্রথম দিনে চালিয়েছিলেন সাড়ে ৫০০ কিলোমিটার রাস্তা। প্রতিটি জে’লার সার্কিট হাউসে গিয়ে তুলেছেন স্টিল ছবি। গিয়েছেন জে’লার দ’র্শনীয় স্থানেও। ইয়ামাহা রাইর্ডাস ক্লাবের সাভার জোনের স্বক্রিয় সদস্যও সুজাতা। রাস্তায় থামলেই উৎসুক জনতা ঘিরে ধ’রতও তাকে।

 

এ সময় তার সঙ্গী হয়েছিল তার প্রিয় পোষা কুকুর জিমি। জিমির চার মাস বয়স থেকে সুজাতার স’ঙ্গে রয়েছে। বাইক চালিয়ে একা কোনো নারীর ৬৪ জে’লা ভ্রমণ এটাই প্রথম দা’বি সুজাতার। এর আগে বাইক চালিয়ে মাত্র ২৮ ঘণ্টায় টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পৌঁছে রেকর্ড গড়েন তিনি।

 

জা’না গেছে, ঢাকার প্রাইম ইউনিভার্সিটিতে আ’ইন বিষয়ে লেখাপড়া করছেন। মাঝে পু’লিশ সদস্য হিসেবে চাকরি নিয়েছিলেন। এক বছরের মাথায় স্বেচ্ছায় চাকরি ছে’ড়ে দিয়ে বাড়িতে চলে আসেন সুজাতা। বাইক নিয়ে মেয়ের এমন মাতামাতিতে ছোটবেলা থেকে উৎসাহ দিয়ে এসেছেন তার মা আকলিমা মমতাজ শান্তি। সাহসী নারী সুজাতার

 

মোটরসাইকেল চালানো নে’শার মতো। এতে এলাকাবাসী ও স্বজনরা লেডি বাইকার সুজাতাকে নিয়ে গর্ববোধ করেন। সুজাতার ৯ মাস বয়সে তার মায়ের স’ঙ্গে বাবা মফজে’লের বি’চ্ছেদ ঘটলে এক মেয়েকে নিয়ে উপজে’লা

 

ভূমি অফিসে চর্তুথ শ্রেণির চাকরি করে সুজাতার সুখের জোগান দিচ্ছেন মা। চার বছরের কুকুর জিমি ও ২৩ বছরের যুবতী লেডি বাইকার সুজাতা ১৩ বছর ধ’রে বাইক চালাচ্ছে। সুজাতার স’ঙ্গে কথা হয় সময় নিউজে’র বিশেষ

 

প্রতিবেদক মো. ইউসুফ আলীর। সুজাতা তাকে জা’নান, আপনিই প্রথম এসেছেন টিভিতে ও অনলাইনে নিউজ করা জন্য। এটা নিউজ হবে তা আমা’র জা’না ছিল না। সিংগাইরের নয়পাড়া গ্রামের গিয়েছিলাম ১০ জানুয়ারি ভোর ৭টায়। তিন সদস্যের পরিবার সুজাতা তার মা আকলিমা বেগম ও পঞ্চবানু। বাড়িতে রয়েছে তার সুজাতার আদরের

 

জিমিসহ আরও ছোট-বড় কয়েকটি কুকুর। সুজাতা জা’নায়, ছোট বেলায় বাবার স’ঙ্গে মায়ের বি’চ্ছেদ হওয়ার পর মা নানির বাড়ি নয়পাড়া থাকেন। সেখানেই তার বেড়ে উঠা। মায়ের বাইক চালানো দেখেই তার বাইকের প্রতি আগ্রহ ছিল। নারী হওয়া মায়ের এমন সংগ্রামী জীবন হওয়া সেও তা আপনা আপনি রপ্ত করে। একসময় সমাজ আড়ালে

 

কিছু বললেও এখন তা অনেক সহজ হয়েছে। তাই গ্রামের রাস্তাঘাট পার হয়ে সে ২৮ ঘণ্টায় টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পৌঁছে রেকর্ড গড়েন। তারপর ঘুরে আসেন ৬৪ জে’লায়। এখন সে সম্ভাব হলে বাইক নিয়ে বিদেশও ভ্রমণ ক’রতে চান। আর এসব সম্ভব হয়েছে তার মা আকলিমা আক্তার শান্তির জন্য।

 

বাইকার সুজাতার মা জা’নান, মেয়েকে মেয়ে হিসাবে না একজন সন্তান হিসেবে যতুটুকু করার দরকার আমি করেছে। ওর ইচ্ছা প্রতি গু’রুত্ব দিয়েছি। যখন যা চায় তা দিয়েছি। লেডি বাইকার হিসেবে আমি ওকে দে’খতে চেয়েছি। তাই আমা’র ইচ্ছায় সে পু’লিশের চাকরি থেকে চলে এসেছে। আমাদের বাড়িতে ওর কয়েকটি কুকুর ও

 

সুজাতার প্রিয় পোষা কুকুর জিমি আছে। সুজাতা যেখানে যায় জিমিকে নিয়ে যায়। সুজাতার নানি পঞ্চবানু জা’নায়, মেয়ে শান্তি যখন স্বামীর নি’র্যাতনে সইতে না পেরে চলে আসে ও বি’চ্ছেদ হয়। তখন সুজাতার বয়স মাত্র ৯ মাস। তাই সুজাতার মাকে আমি বাড়ির কিছু জায়গা দিয়ে তার স’ঙ্গে রয়েছে। ছোট একটি সরকারি চাকরির ওপর শান্তির সংসার।

 

তারপরও সুজাতার মায়ের দিকে তাকিয়ে কে’টে যাচ্ছে শান্তির সংসার। শান্তি যখন বাইক চালাই তো তখন কেউ কেউ বলতে মেয়ে হয়ে আবার বাইক চালায়। তবে এখন তা অনেক পরিবর্তন হয়েছে। সুজাতার ইচ্ছা বাইক নিয়ে বিদেশ যাবে। কিন্তু আমা’র তো টাকা অভাব।

 

সুজাতার মামা মো. রফিক মিয়া জা’নান, সুজাতা খুব ভালো মেয়ে। আম’রা সুজাতাকে নিয়ে গর্ব করি। সুজাতার বান্ধবী তাসলীমা আক্তার জা’নায়, ছোট বেলা থেকে সুজাতার বাইকের প্রতি আ’লাদা কৌতূহল ছিল। আমাদের বাইকে নিয়ে জে’লার বিভিন্ন স্থানে যেত।

 

এখন তো দেশের মধ্যে নাম করছে। ওর নাম সারাদেশে ছ’ড়িয়ে প’ড়েছে। এতে আম’রা আরো গর্বিত। সুজাতার প্রতিবেশী খায়রুল বলেন, সুজাতা শুধু বাইক নয় পড়াশোনায়ও ভালো। আম’রা তার আরো উন্নতি আশা করি।

 

 

Check Also

আবারও ভারত-পাকিস্তানকে পেছনে ফে’লে এগিয়ে গেলো বাংলাদেশ!

প্র’তিবেদনটিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ২০১১ সালে মাথাপিছু আয় ভারতের তুলনায় ৪০ শতাংশ কম ছিল। এই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *