Breaking News

৩ বছর ধরে বিনামূল্যে খেজুরের রস খাওয়াচ্ছেন এই ব্যক্তি

শীতের সময়ের আনন্দ খেজুর রস ছাড়া অনেকটাই অপূর্ণ। মনে আশা থাকলেও অনেকের ভাগ্যেই জোটে না ঐতিহ্যের স্বাদ নেয়ার সুযোগটুকু। আকাঙ্ক্ষা যখন আক্ষেপে রূপ নিয়েছে, তখন যশোরের বাঘারপাড়ার মাওলানা

 

ফারুক শুরু করেন এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। বিনামূল্যে খেজুর রস সরবরাহ করছেন পুরো জনপদে। তিনবছরের কর্মকাণ্ডে দূর-দূরান্তেও তার পরিচিতি ‘রস কাকা’ হিসেবে। জানা গেছে, পেশায় শিক্ষক। পাশাপাশি বিবাহ

 

রেজিস্ট্রার হিসেবেও কাজ করেন। তবে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বহরমপুরের গ্রামের সবার কাছে ‘রস কাকা’ নামেই পরিচিত মাওলানা কাজী ফারুক হোসেন। তিন বছর ধরে তিনি বিনামূল্যে খেজুর রস পান করানোর ব্যতিক্রমী সেবামূলক এ কাজটি করছেন। নিজের গাছসহ গ্রামের মানুষের পরিত্যক্ত গাছগুলো কেটে রস সংগ্রহ

 

করেন তিনি। বাদুড় ও অন্য পাখি থেকে নিরাপদ রাখতেও ব্যবস্থা নেন। প্রতিদিন রস আহরণের পর মাইকিং করে গ্রামবাসীকে জড়ো করেন। ৫৮ বছর বয়সী এ মানুষটি অন্যের তৃপ্তি দেখে সব কষ্ট ভুলে যান। সকলের কাছে রস

 

কাকা হয়ে ওঠাই তার শ্রমের সার্থকতা। মাওলানা কাজী ফারুক হোসেন বলেন, কেউ কেউ রস পান করে বলে যে ৫-৭ বছর পর আমি এই রস পান করেছি। যখন মানুষের হাতে এক গ্লাস রস দেই। তখন মনে হয়, মানুষকে ১ হাজার টাকা দিলেও মানুষ এত খুশি হয় না।

 

শুধু নিজেই নন, পরিবারের সদস্যরাও যথাসাধ্য সহায়তা করেন কাজী ফারুক হোসেনকে। এলাকাতে এখন আগের মত কেউ রস আহরণ করেন না বলে অনেকেরই সুযোগ হয় না রস পানের। স্থানীয় জনপ্রতিনিধির বোরহান

 

উদ্দিনের মতে, তার এলাকায় এমন কাজ ব্যতিক্রমধর্মী। চলতি বছর কাজী ফারুক হোসেন ৬০টি খেজুর গাছ থেকে রস আহরণ করছেন। এ কাজের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের ফলের গাছ লাগিয়ে পরিবেশ রক্ষায় অবদান রাখছেন।

 

 

Check Also

কেউ বলতে পারে না নদীতে কালভা’র্ট কে বানাচ্ছে!

নবীগঞ্জে উপজে’লার বাউসা ইউনিয়নের নাদামপুর নামকস্থানে শাখাবরাক নদীতে পানি চলাচলের পথ ব’ন্ধ করে ব্য’ক্তিস্বার্থের জন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *