Breaking News

পানির ভাপ ও নাকে সরিষার তেল দিন: প্রধানমন্ত্রী

দেশের সব মানুষকে সচে’তন হওয়ার কথা বলেছন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল)

সকালে একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের উদ্বোধনীতে এ কথা বলেন তিনি। এ সময়

 

ম’হামা’রি করো’না রো’ধে সংসদে বেশ কিছু প’রামর্শ তুলে ধ’রেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বলেন, যখনই

কেউ বাইরে যাবেন, বেশি মানুষের স’ঙ্গে মিশবেন, দোকান বা অফিস-আদালতে কাজ করবেন বা

 

মানুষের স’ঙ্গে কথা বলবেন তখনই নিজ ঘরে ফি’রে একটু গরম পানির ভাপ নেওয়াটা জ’রুরি। এটা

কিন্তু খুব ক’ঠিন কোনো কাজ না। কোনো পাত্র, জগ বা ছোট বালতিতে ভাপ ওঠা গরম পানিতে

 

নিঃশ্বা’সটা নিলে পরে ওই ধোঁয়া নাকের সাইনাস পর্যন্ত পৌঁছে যায়। সাইনাসের স’মস্যায় নিয়মিত

ভুগতাম বলে ভাপ নেওয়াটা আমা’র একটা অভ্যাস ছিল। এ ভাপটা নিলে জীবানুটাকে দু’র্বল করে দেবে বা

 

শেষ করে দেবে। তিনি আরও বলেন, আরেকটি কাজ আমি করি। আপনারাও চাইলে সেটা ক’রতে পারেন।

সেটা হলো নাকে একটু সরিষার তেল দিতে পারেন। আমি জানি এটাকে খুব গ্রাম্য একটা বিষয় মনে হতে

 

পারে! কিন্তু মনে প’ড়ে, ছোটবেলায় পুকুরে গোসল করার আগে দাদি নাকে-কানে আর নাভিতে সরিষার

দিয়ে দিতেন। যাতে কোথাও দিয়ে পানি না ঢুকে যায়। আমি করো’না ভা’ইরাসের পর থেকে নিয়মিত যখনই

 

বাইরে আসি, নাকে একটু সরিষার তেল দিয়ে রাখি। কাজেই এটাও কিন্তু সবাই দিতে পারেন। তিনি বলেন,

কাজ শেষে দ্রুত ঘরে ফেরা, কোথাও যাতে জনসমাগম না হয় সেদিকে বিশেষভাবে দৃষ্টি দেওয়ার জন্য

 

আমি সবাইকে অনুরো’ধ রাখছি। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, করো’না ভা’ইরাস দেশে আম’রা প্রায় নিয়ন্ত্রণ

করে ফে’লে ছিলাম। কিন্তু আবার বিশ্বব্যাপী করো’না র প্রাদু’র্ভাব দেখা দিয়েছে। এবারের করো’না

 

ভা’ইরাসটা হ’ঠাৎ করে খুব দ্রুত বৃ’দ্ধি পাচ্ছে। আপনারা নিশ্চয়ই লক্ষ্য ক’রেছেন যে, বাংলাদেশেও ২৯

থেকে ৩১ মা’র্চ এমন দ্রুত বেড়ে গেছে যেটা চিন্তাও করা যায় না। শেখ হাসিনা বলেন, ভ্যাকসিন নেওয়া

 

শুরু হয়েছে বলে মানুষের মধ্যে একটা বিশ্বা’স জেগে গেছে যে, কিছুই বোধ হয় আর হবে না। আমি কিন্তু

শুরু থেকেই বলছিলাম, ভ্যাকসিন নিলেও সা’বধানে থাকতে হবে, স্বা’স্থ্যবিধিগুলো মেনেই চলতে হবে। এ

 

স্বা’স্থ্যবিধি মানাটা কিন্তু ব’ন্ধ হয়েছে। একটা হিসাব করে দেখা গেছে যে, যতগুলো বড়-বড় বিয়ের

অনুষ্ঠানে যারাই গিয়েছেন তারাই ফি’রে এসে করো’না ভা’ইরাসে আক্রা’ন্ত হয়েছে। যারা বিভিন্ন জায়গায়

 

কক্সবাজারসহ বিভিন্ন স্পটে পর্যটন কে’ন্দ্রে বেড়াতে চলে গেছে, তারাও কিন্তু ফেরার পরে করো’না য়

আক্রা’ন্ত হয়েছেন। দাওয়াত, দোকানপাট, হাটাবাজারে বেশি যাওয়া এসব যেন একটু বেশিই বেড়ে

গিয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি এজন্য সবাইকে বলব, প্রথমে দেশে করো’না ভা’ইরাস দেখা যাওয়ার

 

পর যেভাবে আম’রা সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করেছিলাম। ঠিক সেভাবেই আবার আমাদের নিয়ন্ত্রণ ক’রতে হবে।

ইতোমধ্যে কিছু নির্দে’শনা আম’রা দিয়েছি প’রিস্থিতি নি’য়ন্ত্রণে। সেজন্য আমাদের জনগণের সহায়তা

দরকার। এছাড়া সবাইকে মাস্ক পরার অনুরো’ধ করেন সরকার প্রধান।

 

 

Check Also

একসঙ্গে মা-মেয়ের বিয়ে! বিস্তারিত জানুন

একসঙ্গে মা-মেয়ের বিয়ে! কারণ জানলে আপনিও সমর্থন জানাবেন! বয়স কেবল সংখ্যামাত্র। বিভিন্ন ক্ষেত্রেই এই কথাটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *