Breaking News

ওদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধর্মের নামে জনগণ ইসলামবিরোধী কোনো কার্যক্রম গ্রহণ

করবে না। কয়েকজনের জন্য ইসলামের অপমান সহ্য করা হবে না। আমি দেশের মানুষকে

 

ধৈর্য ধর’তে বলব, সবাইকে ধৈর্য নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। রোববার একাদশ সংসদের দ্বাদশ

অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় তিনি বলেন, ইসলামের নামে ধ্বং’সা’ত্মক

 

কর্ম’কাণ্ডে জড়ি’তদের বি’রুদ্ধে আইন অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। খবর বাসসের।

হেফাজতে ইসলামের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড ও ভাঙচুরের প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তারা তাদের

 

ধ্বং’সাত্ম’ক ও অ’সামাজিক কার্য’কলাপের মাধ্যমে পবিত্র ধর্মকে ধ্বং’স করছে। তাদের কর্মকা’ণ্ডের

কারণে অনেক লোক প্রা’ণ হারা’য়, এমনকি ২৬ মার্চও বহু লোক প্রাণ হা’রিয়েছে, এর জন্য তারাই

 

(হেফাজত) পুরোপুরি দায়ী।’ হেফাজতের পেছনে বিএনপি ও জামায়াত রয়েছে অভিযোগ করে শেখ

হাসিনা বলেন, ‘হেফাজত একা নয়, বিএনপি ও জামায়াত তাদের সাথে রয়েছে।’ হেফাজতের কেন্দ্রীয়

 

নেতা মামুনুল হকের প্রতি ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এত কিছু বলে অপবিত্র কাজ করে ধরা পড়েন।

এই বিনোদনের এত অর্থ কোত্থেকে আসে, এটা দেশবাসী বিচার করবে।’ তিনি আরও বলেন, ”তাদের

 

কেমন তা মানুষ দেখেছে। পারলারে কাজ করা এক মহিলা। এদিকে বউ হিসেবে পরিচয় দেন। আবার

নিজের বউয়ের কাছে বলেন যে ‘অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে আমি এটা বলে ফেলেছি।’ যারা ইসলাম ধর্মে

 

করেন, এরকম মিথ্যা কথা বলতে পারেন? কিন্তু তারা তো (হেফাজতে ইসলামের নেতারা) মিথ্যা

বলতে পারেন। কাজেই তারা কী ধর্ম পালন করবেন? মানুষকে কী ধর্ম শেখাবেন?

 

 

Check Also

একসঙ্গে মা-মেয়ের বিয়ে! বিস্তারিত জানুন

একসঙ্গে মা-মেয়ের বিয়ে! কারণ জানলে আপনিও সমর্থন জানাবেন! বয়স কেবল সংখ্যামাত্র। বিভিন্ন ক্ষেত্রেই এই কথাটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *