Breaking News

মামুনুল হকের পক্ষে প্রচারণা, ছাত্রলীগ নেতাকে অব্যাহতি

ওমর ফারুক নামে রাঙ্গামাটির স্থানীয় এক ছাত্রলীগ নেতাকে হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের

পক্ষ নিয়ে প্রচারণা চালানোয় অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া তাকে দল থেকে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রে

 

সুপারিশ পাঠানো হয়েছে। বুধবার (৭ এপ্রিল) রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলা ছাত্রলীগের এক প্রেস

বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে। এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি

 

আব্দুল জব্বার সুজন। কাপ্তাই ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওমর ফারুক বাংলাদেশ-

সুইডেন পলিটেকনিকের সাবেক ছাত্র। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি

 

করছেন। জানা গেছে, ফারুক হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের পক্ষে লেখালেখি ও একের পর

এক উ’স্কা’নিমূলক পোস্ট করছেন ফেসবুকে। দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থি কার্যকলাপের সঙ্গে জড়িত থাকায়

 

কাপ্তাই ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ওমর ফারুককে সংগঠনের পদ থেকে অব্যাহতি

প্রদান করা হয়। একই সঙ্গে তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য জেলা কমিটির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে

 

সুপারিশ পাঠানো হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। তবে এ বিষয়ে ওমর ফারুকের সঙ্গে যোগাযোগ

করা সম্ভব হয়নি।

করোনাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছি না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

 

‘মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানেনি, আর তাই সরকারকে লকডাউন দিতে হয়েছে। একইসঙ্গে ১৮ দফা নির্দেশনা

দিয়েছে। এখন লকডাউন চলছে। মানুষকে এখন ১৮ দফা নির্দেশনা মেনে চলতে হবে’ বলে জানান

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। নিজের জন্য, পরিবারের জন্য, রাষ্ট্রের জন্য, অর্থনীতির জন্য সাধারণ মানুষকে

সবকিছু ভেবে কাজ করতে হবে।’ স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘করোনার সুনামি পৃথিবীকে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে।

 

আর এটা কেবল স্বাস্থ্য সেক্টরেই না, অর্থনীতি, খাদ্য, শিক্ষা, নিরাপত্তা সবক্ষেত্রেই। পৃথিবীর সব দেশের সব

এর প্রভাব পড়েছে। আমরা করোনাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চেষ্টা করছি। হাসপাতাল বেড়েছে, আইসিইউ

বেড়েছে, চিকিৎসা সম্পর্কে এখন জানা গেছে। করোনার নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বেড়েছে। দেশে টিকাদান

 

কার্যক্রম চলছে। এরপরও করোনাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছি না।’ আজ বুধবার (৭ এপ্রিল) বিশ্ব স্বাস্থ্য

উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানের আয়োজন করে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

এবারে স্বাস্থ্য দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয় ‘সকলের জন্য সুন্দর ও স্বাস্থ্যকর বিশ্ব গড়ি’। জাহিদ

 

মালেক বলেন, ‘করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে ক্যান্সার, কিডনি, স্ট্রোকের রোগীসহ অন্যান্য

সং’ক্রা’মক রোগীদের চিকিৎসা ব্যাহত হচ্ছে, তাদের চিকিৎসা দিতে পারছি না।’ তিনি আরও বলেন,

’করোনায় সং’ক্র’মণের হার কমিয়ে আনা গিয়েছিল। কিন্তু মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানেনি, টিকা নিয়ে উদাসিনতা

 

দেখিয়েছে। দলবেঁধে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে গিয়েছে। বিয়েসহ বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে মাস্ক ছাড়া,

সামাজিক দূরত্ব না মেনে জড়ো হয়েছে। এসব কারণে এখন সং’ক্র’মণের হার অনেক বেশি বেড়ে গেছে।’

এসময় অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য দিবসের মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংক্রামক রোগ

 

বিভাগের লাইন ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. নাজমুল হক। এতে আরও বক্তব্য রাখেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব

মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শরফুদ্দিন আহমেদ, স্বাস্থ্য অধিদফতরের

মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর

প্রমূখ।

 

 

Check Also

একসঙ্গে মা-মেয়ের বিয়ে! বিস্তারিত জানুন

একসঙ্গে মা-মেয়ের বিয়ে! কারণ জানলে আপনিও সমর্থন জানাবেন! বয়স কেবল সংখ্যামাত্র। বিভিন্ন ক্ষেত্রেই এই কথাটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *